নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: মুসলিম নেতাদের আবেদনে সাড়া দিয়ে রমজানের শেষ জুম্মাতেও ভিড় হয়নি কলকাতার মসজিদগুলিতে। বলতে গেলে নজিরবিহীন ভাবে এবারের রমজানে মুসলিমরা মসজিদে জামাত করতে পারলো না।
মুসলিম নেতৃত্ব ও ইমামরা বারবার আবেদন করেছেন, লকডাউনের সময় করোনা সতর্কতা হিসেবে মসজিদগুলিতে নামাজে যেন ভিড় না হয়। এমনকি ঈদের বাজার এড়িয়ে যাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন তারা। নেতৃত্বের সেই আবেদন মেনে কলকাতার মসজিদে ভিড় হয়নি। অনেকে ভেবেছিলেন রমজানের শেষ জুম্মায় হয়তো ভিড় হবে, কিন্তু সেটাও হয়নি। বাড়িতে বসেই আল্লাহর কাছে কেঁদেছেন রোজাদাররা।
নাখোদা মসজিদ কমিটির পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, শেষ জুম্মায় অল্প সংখ্যক মুসল্লি এসেছে। করোনার কারণে রোজাদাররা যেভাবে ইমাম ও মুসলিম নেতৃত্বের নির্দেশ মেনে চলেছেন তা সত্যিই ঐক্যবদ্ধ জাতির নিদর্শন।
অন্যবার এইদিনে উপচেপড়া ভিড় হয়। কিন্তু এবারের ছবি ছিল ভিন্ন। এমনকি এবার দলবদ্ধ ভাবে ঈদের বাজারও করেনি মুসলিমরা। কলকাতার খিলাফত কমিটি, রাজ্য ওয়াকফ বোর্ড, নাখোদা মসজিদ কমিটি, জামায়াতে ইসলামী, জমিয়তে আহলে হাদিস, ফুরফুরা শরীফ, জমিয়তে উলামায়ে হিন্দ সহ রাজ্যের প্রায় সমস্ত সংগঠন ঐক্যবদ্ধ ভাবে ভিড় এড়ানোর পরামর্শ দিয়েছেন। সেই আবেদন মেনেছেন রোজাদাররা। মুসলিমদের কাছে পবিত্র মাস রমজান। সেই মাসে এইভাবে ঘরে নামাজ পড়া ও ইবাদত করা নজিরবিহীন ঘটনা। এক রোজাদার বলছিলেন, মন চাইছিলো মসজিদে যেতে। আল্লাহ না চাইলে কিছুই হয়না। মিল্লাতের প্রখ্যাত আলেমদের আবেদন সবাই মেনেছে। ইনশাআল্লাহ একদিন আবার মসজিদে সবাই নামাজ পড়তে পারবো। তবে করোনা অনেক কিছু শিখিয়ে দিয়ে গেল। ঐক্যবদ্ধ হয়ে থেকে আল্লাহর আদেশ ও নিষেধ মেনে চলার মধ্যে যে কল্যাণ আছে তা বুঝলাম।