নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: কংগ্রেস তো নয়ই ৩৪ বছরের জামানাতেও লোডশেডিং রুখতে ব্যর্থ হয়েছিল বামফ্রন্ট। ক্ষমতায় এসে লোডশেডিং বন্ধ করার আশ্বাস দিয়েছিল তৃণমূল সরকার। দ্বিতীয় দফায় ক্ষমতায় এসে রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ও বিদ্যুৎ মন্ত্রী ২৪ ঘন্টায় ২৪ মিনিটও বিদ্যুত পালাবে না বলে আশ্বাস দিলেও লোডশেডিং এ কার্যত বিধ্বস্ত মুর্শিদাবাদের গ্রামীন এলাকা গ্রামগুলো। বৃষ্টি কিংবা ঝড় তো বটেই স্বাভাবিক পরিবেশেও বিদ্যুৎ হীন অবস্থায় পরে থাকতে হচ্ছে জেলার বাসিন্দা দের। বিদ্যুৎ সমস্যা দিনের পর দিন বাড়লেও নীরব প্রসাশন। কথা বলছেন না রাজনৈতিক দলের নেতারাও।

জেলার জঙ্গিপুর মহকুমার সামসেরগঞ্জ, সুতি, ফারাক্কা, লালগোলা, রঘুনাথগঞ্জ সহ বিস্তৃর্ণ এলাকায় বিদ্যুতের চরম সমস্যায় ছাত্রছাত্রীদের ব্যাপক সমস্যার সম্মুখীন হতে হচ্ছে। কোনো কারণ ছাড়াই ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুত না থাকায় ছাত্রছাত্রীদের হ্যারিকেন জ্বালিয়ে পড়াশুনা করতে হচ্ছে। বিড়ি শ্রমিক রাজমিস্ত্রি অধ্যুষিত এলাকাতে এই সমস্যায় স্বাভাবিক জীবন যাপন ব্যাহত হচ্চে। বিদ্যুতের এই চরম বেহাল দশা থাকলেও নীরব প্রসাশন। নীরব ভোটের সময়ে গলা ফাটানো নেতারাও।

রঘুনাথগঞ্জের উমার ফারুক নামে এক ছাত্রের কথায়, ভোট আসলেই নেতাদের প্রতিশ্রুতির বন্যা বয়ে যায়। ভোট পেরোলেই আর দেখা পাওয়া যায়না। ঝড়বৃষ্টি হোক কিংবা না হোক নিত্যদিন ঘন্টার পর ঘন্টা বিদ্যুৎ না থাকা যেন রুটিনে পরিণত হয়েছে। প্রতিদিন বিদ্যুৎ পালিয়ে যাওয়ায় আমাদের পড়াশুনায় ব্যাপক ক্ষতি হচ্ছে।একই অভিযোগ সামসেরগঞ্জ ব্লকের বাসুদেবপুর এলাকার মনিরুল ইসলাম, সোহেল রানা, রুমালি খাতুন, তাজকেরা খাতুনদের। বিদ্যুৎ সমস্যার সমাধান না করতে পারলে এবার ভোটে প্রার্থীদের উচিত শিক্ষা দেওয়ারও আবেদন জানান ছাত্রছাত্রীরা।