নিজস্ব প্রতিনিধি, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: কর্মীসভায় গিয়ে বিড়ম্বনায় অনুব্রত মন্ডল। প্রকাশ্যেই উঠলো গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব থেকে শুরু করে বাড়ির কাটমানির টাকা। শেষে প্রকাশ্যে পুলিশ সুপারকে বলে জাল নোট মামলায় ফাঁসিয়ে গ্রেপ্তার করিয়ে দেবার হুঁশিয়ারি দিলেন অনুব্রত মন্ডল।

রবিবার বীরভূমের দুবরাজপুর পৌরসভা ক্রীড়াঙ্গনে অনুষ্ঠিত হয় দুবরাজপুর ব্লকের কর্মীদের নিয়ে কর্মী সম্মেলন। অনুব্রত মন্ডল সহ অনান্য জেলা নেতৃত্ব উপস্থিত ছিলেন সেখানে। আর এই সম্মেলনেই খয়রাশোল ব্লক নিয়ে আলোচনা শুরু হতেই শুরু হলো নেতৃত্বের বিড়ম্বনা৷  কোনো নেতা প্রকাশ্যে করছেন গোষ্ঠীদ্বন্দ্বের অভিযোগ, কেউ প্রকাশ্যে করছেন নেতার বিরুদ্ধে বাড়ি তৈরি করতে কাটমানির টাকা নেওয়ার অভিযোগ। আর অনুব্রত মন্ডল কর্মীদের লোকসভা নির্বাচনে নিজেদের এলাকায় হারের কারন জিজ্ঞাসা করতেই উঠে আসে এসব একের পর এক তথ্য। আর শেষে কর্মীদের সরাসরি হুমকি দিয়ে ফেললেন অনুব্রত মন্ডল।

বললেন, “যারা টাকা নিয়েছে তাদের সবার নামে থানায় কেস করো। এসপিকে বলে আমি তুলিয়ে দেবো। সবকে জাল নোটের কেস দেবো,  যাতে তিন বছর বেরোতে না পারে।”

আর এতেই শুরু হয়েছে বিতর্ক। একদিকে যেমন গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব, কাটমানির টাকায় বিড়ম্বনায় অনুব্রত মন্ডল সেখানেই বিরোধীরা অভিযোগ করছেন যে, এই ঘটনাতে যেমন স্পষ্ট হচ্ছে জেলায় গোষ্ঠীদ্বন্দ্ব রয়েছে, ঠিক তেমনই জেলায় বাড়ি তৈরি করতে তৃনমূল কাটমানি নিয়েছে তাও প্রমানিত। এছাড়াও, অনুব্রত মন্ডলের কথাতেই স্পষ্ট হয়ে গেলো যে পুলিশ অনুব্র‍ত মন্ডলের কথায় ওঠে বসে। তাই তিনি প্রকাশ্যে বলতে পারছেন যে, “অ্যারেস্ট করিয়ে দেবো, আবার জাল নোটের কেস দিয়ে দেবো।”