টিডিএন বাংলা ডেস্ক:  বিকেল থেকে প্রবল ঝড়-বৃষ্টি। তাপমাত্রা কমলেও লন্ডভন্ড শহর। বিপর্যন্ত ট্রেন চলাচল। রাতে বাড়ি ফিরতে শহরবাসী অসুবিধায় পড়েন। এখানে ওখানে গাছ পড়ে বন্ধ যানচলাচল।

হাওয়া অফিস জানিয়েছে, এটা কালবৈশাখী। যার গতিবেগ ছিল ঘণ্টায় ৬৮ কিলোমিটার। তার সঙ্গে ছিল স্থানীয় মেঘেরও প্রভাব।

এ দিনের কালবৈশাখীতে শিয়ালদা শাখায় দারুণ ভাবে ব্যাহত হয় ট্রেন চলাচল। শিয়ালদা দক্ষিণ শাখায় বেশ কিছু ক্ষণের জন্য বন্ধ হয়ে যায় ট্রেন চলাচল। শিয়ালদহ মেন শাখাতেও ট্রেন চলাচল ব্যাহত হয়। পূর্ব বর্ধমান ও বুদবুদে বাজ পড়ে দু’জনের মৃত্যু হয়। কালবৈশাখীতে কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বহু জায়গায় বহু গাছ উপড়ে পড়ে। তুমুল ঝড়ে গাছের বড় ডাল রাস্তায় এসে পড়েছে। গাছ ভেঙে পড়ে বিবাদি বাগে। বরাত জোরে বেঁচে যান পথচারীরা।

কালবৈশাখীর দাপটে শহরের বিভিন্ন প্রান্তে গাছ পড়ে যান চলাচল ব্যাহত হয়েছে। ময়দান, মহাকরণ, বিবাদি বাগ এবং ই এম বাইপাসের বিভিন্ন জায়গায় গাছ উপড়ে যায়। রাজা সুবোধ মল্লিক স্কোয়ারের কাছে ঝোড়ো হাওয়াতে মুচিপাড়া থানার পুলিশের গাড়িতে গাছ পড়ে ক্ষয়ক্ষতি হয়। কলকাতা পুরসভা এবং বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনীর কর্মীরা রাস্তা থেকে গাছ সরাতে তৎপরতার সঙ্গে কাজ করছেন।

ট্রেন চলাচল ব্যাহত হওয়ায় শিয়ালদহ স্টেশনে থিকথিকে ভিড়। ট্রেন চলাচল স্বাভাবিক না হওয়া পর্যন্ত এই ভোগান্তি চলবে। বাগবাজারে ট্রেন লাইনে গাছ পড়ে চক্র রেলের পরিষেবাও ব্যাহত হয়েছে বলে রেল সূত্রে খবর।