কৌশিক সালুই, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: এবার প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে “গব্বর সিং” বলে কটাক্ষ করলেন কলকাতার মেয়র ফিরহাদ হাকিম। শনিবার বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী শতাব্দি রায়ের সমর্থনে সাঁইথিয়া শহরের বাস স্ট্যান্ড এ জনসভাতে উপস্থিত ছিলেন তিনি। এছাড়াও ছিলেন স্থানীয় বিধায়ক নিলাবতী সাহা, জেলা পরিষদের সভাধিপতি বিকাশ রায় চৌধুরী সহ-সভাপতি অভিজিৎ সিংহ সহ অন্যান্য নেতৃত্ববৃন্দ।

ফিরহাদ হাকিম বলেন, এতো প্রধানমন্ত্রী নয়, গব্বর সিং। ভারতের সব মানুষ ভয় পাচ্ছে। মায়েরা বাচ্চাদেরকে রাত্রিবেলায় বলছে তাড়াতাড়ি শুয়ে পড় নরেন্দ্র মোদী চলে আসবে। আবার নোটবন্দি, আবার জিএসটি, আবার সর্বনাশ। তাড়াতাড়ি শুয়ে পড় বাংলার মায়েরা বলে। মোদির দুটো লোক আছে গব্বর সিং এর মত একজন হল কালিয়া আর একজন সামা। আর ওই বর্গী এলো দেশে কি যেন নাম চম্বলের ডাকাত সিদ্ধার্ত নাথ সিং এবং বাংলা দিলীপ। মোদি ওদেরকে বলে আরে তুম লোগ বাঙ্গাল নেহি লে সাকতে। ও এক ঠো অউরত। আর ওরা তখন বলে ,ও এক ঠো অউরত নেহি। বাঙ্গাল কে আট কোড়র জনতা উস্কি সাথ হে। তোমরা ভাগ মমতা ভাগ, ভাগ মুকুল ভাগ বলেছিলে। তাদের মধ্যে একজন মুকুল তাকে কোলে নিয়ে বসে আছো। তোমরা ভাবছ উড়িষ্যা দিল্লি গুজরাট থেকে এসে বাংলা শাসন করবে। তোমাদের দখলদারি হবে না। বাংলার মা সন্তানের জন্ম দেয় না। নরেন্দ্র মোদী রাজনাথ সিং তোমরা বাংলা দখল করবে আর আমরা চুড়ি পড়ে নাই।

তিনি আরও বলেন, মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এর মত নেত্রীকে সারাদেশে চাই। ওই উত্তর প্রদেশ ওই হরিয়ানার মেয়েরা যখন কন্যাশ্রী রূপসী পায় না, সবুজ সাথী সাইকেল পায় না মাঝপথে পড়াশোনা ছেড়ে দেয় তখন আমাদেরও খুব কষ্ট হয়। এই বাংলার মেয়েরা পাচ্ছে অথচ ভারতবর্ষের অন্য কোন রাজ্যের মেয়েরা এসব সুযোগ সুবিধা পাচ্ছে না। একমাত্র মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় পারবে এই সমস্ত সমস্যা সমাধান করতে। ঐ সমস্ত রাজ্যের বহু কন্যাদায়গ্রস্ত বাবা অভাবের তাড়নায় তার মেয়েদেরকে অন্ধকার জায়গায় বেচে দিতে বাধ্য হচ্ছে। যদি এ রাজ্যের মত রূপশ্রী প্রকল্প থাকতো তাহলে তাদেরকে ওই কষ্ট করতে হত না। তাই আমরা মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কে প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দেখতে চাই।