সভায় বিভিন্ন বক্তা “ফাঁসিরঘাটে সেতু চাই”-এই দাবীকে সফল করতে বিভিন্ন পরামর্শ তুলে ধরেন। ফাঁসিরঘাটে সড়ক সেতু হলে কোচবিহার দক্ষিণ ও পশ্চিম অংশের সমস্ত এলাকার দূরত্ব প্রায় ১৫ কিমি যাবে। এতে লাখ লাখ মানুষ কম সময়ে জেলাসদরে আসতে পারবেন। বর্তমানে এইসব এলাকার মানুষকে প্রায় ১৫ কিমি ঘুরপথে ঘুঘুমারী সেতুর উপর দিয়ে শহরে প্রবেশ করতে হয়। এখানে সেতু হলে পার্শ্ববর্তী এলাকাগুলির উন্নয়ন সহ আরো অনেক সুবিধার কথা উঠে আসে বক্তাদের বক্তব্যে। সভায় মুল বক্তব্য প্রদান করেন কমিটির সভাপতি কউসার আলম ব্যাপারী। পরে একে একে বক্তব্য প্রদান করেন সম্পাদক মোস্তাকিন আলম, উপদেষ্টা সদস্য অ্যাডভোকেট সুপ্রসন্য রায়। সভায় সভাপতিত্ব করেন স্কুলশিক্ষক জালাল উদ্দিন আহমেদ ও কনভেনার ছিলেন অ্যাডভোকেট মনিরুজ্জামান ব্যাপারী। অন্যান্য বিশিষ্টজনদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন কল্যাণ মিত্র, গোলাম মোস্তফা, রঞ্জন দাস ও আরও অনেকে।