নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা,কলকাতা: ঈদের নামাজ ঈদগাহের পরিবর্তে বাড়িতে পড়ার আবেদন জানালো জমিয়তে আহলে হাদিস পশ্চিমবঙ্গ। দেশে করোনা উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে সম্প্রতি অডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে জমিয়তে আহলে হাদীস পশ্চিমবাংলা রাজ্য সংগঠনের ক্যাবিনেট কমিটির একটি মিটিং অনুষ্ঠিত হয়। ওই মিটিং এ আলোচনা ও পর্যালোচনা শেষে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সংগঠনটির নেতারা টিডিএন বাংলাকে বলছেন, বৈঠকে যে গৃহীত সিদ্ধান্ত হয়েছে তা বেশ গুরুত্বপূর্ণ। জনকল্যাণে পরিস্থিতির বিবেচনায়  সরকার যা সিদ্ধান্ত গ্রহণ করছে তা সর্বস্তরের মুসলিমদের মেনে চলার জন্য আহ্বান জানান হয়। এছাড়া এবারের ঈদুল ফিতর কেন্দ্রিক জনমনে যে বিভ্রান্তি শুরু হয়েছে তা নিরসনের জন্য সংগঠন কর্তৃক পরামর্শ, “সরকার ১০ জুন পর্যন্ত সব ধরনের জমায়েতের উপর নিষেধাজ্ঞা আরোপ করেছে”। এ নিষেধাজ্ঞা বলবৎ থাকলে এবারের ঈদুল ফিতরের নামাজ ঈদগাহে পড়া একপ্রকার অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। সুতরাং এ অবস্থা চলতে থাকলে ঈদের নামাজ ঈদগাহের পরিবর্তে বাড়িতে পড়ার জন্য সর্বস্তরের মুসলিমদের প্রতি আবেদন রাখা হয়েছে।”


আহলে হাদীসের নেতাদের মতে,  জনমনে ঈদ কেন্দ্রিক নতুন জামা কাপড় কেনা ও তা পরিধান করার রেওয়াজ চালু আছে। এ রেওয়াজকে অনেকে আবশ্যিক মনে করেন। কিন্তু ইসলামে ঈদ কেন্দ্রিক নতুন জামা-কাপড় কেনা বা তা পরিধান করা আবশ্যিক নয়। তবে, উত্তম পোশাক পরিধান করে ঈদগাহে যাওয়ার কথা বলা হয়েছে। কিন্তু, বর্তমান যা পরিস্থিতি তাতে এবারের ঈদের নামাজ ঈদগাহে পড়াও একপ্রকার অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। এমতাবস্থা সহ সর্ব অবস্থায় অপ্রয়োজনীয় খরচ না করার জন্য মিটিং থেকে বিশেষ আবেদন রাখা হয়েছে। উপরন্তু ব্যয় সংকোচন করে গরিব দুঃখী অসহায় দের সাহায্যের জন্য বিশেষভাবে অনুরোধ রাখা হয়েছে।


আহলে হাদিসের ওই অডিও মিটিংয়ে উপস্থিত ছিলেন, সংগঠনের সভাপতি শাইখ আব্দুল্লাহ সালাফী, সহ-সভাপতি মোকতার হোসেন রাহেমি, সম্পাদক আলমগীর সরদার, সহ-সম্পাদক আইনুল হক, ক্যাশিয়ার শিক্ষক আবদুল ওদুদ, এছাড়া ক্যবিনেট কমিটির অন্যতম সদস্য ও সরল পথ একাডেমির সম্পাদক শিক্ষক তাজাম্মুল হক সালাফী।