টিডিএন বাংলা ডেস্ক: ধারাবাহিকতা বজায় রাখলেন মোদী। শিলিগুড়িতে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী তাঁর প্রথম জনসভা থেকে রাজ্যের তৃণমূলনেত্রীকে কড়া ভাষায় আক্রমণ করলেন। আগে রাজ্যের সব জনসভার বৈশিষ্ট্য এদিন প্রতিফলিত হল তাঁর ভাষণে। তাঁর কথায় দিদির নৌকা ঢুবতে চলেছে। একইসঙ্গে তৃণমূলনেত্রীকে উন্নয়নের স্পিড ব্রেকার বলে কটাক্ষ করেন মোদী। এদিনে বালাকোটে এয়ার স্ট্রাইকের প্রসঙ্গ টেনে আনেন তিনি। তাঁর কথায়, বালাকোটের হামলার পর ইসলামাবাদ, লাহোরের থেকে বেশি কষ্ট হয়েছে কলকাতায় বসে থাকা দিদির।

একইসঙ্গে তিনি আরো বলেন, দিদির গরিবদের জন্য চিন্তা নেই। গরিবি খতম হয়ে গেলে দিদির রাজনীতি শেষ হয়ে যাবে বলেও কটাক্ষ করেন মোদী।। তাঁর কথায়, কংগ্রেস, বামেদেরও এক হাল।

মোদী মমতাকে আক্রমণ করতে গিয়ে বলেন, আপানাদের ভালবাসা দিদির ঘুম ছুটিয়ে দেবে। বাংলার মানুষ আমাকে ভালবাসা দিয়েছে, আমি মাথা নত করে প্রণাম করি। তিনি আরো বলেন, কৃষকদের ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্টে সরাসরি টাকা ঢুকে যায়। কিন্তু দিদি স্পিড ব্রেকার। তিনি উন্নয়নে ব্রেক লাগিয়ে দিয়েছেন। দিদি ৭০ লাখের বেশি কৃষক পরিবারের উন্নয়নে ব্রেক লাগিয়ে দিয়েছেন। কটাক্ষ মোদীর।

এ বারের লোকসভা নির্বাচনে প্রথম থেকে বাংলাকে অনেক বেশি গুরুত্ব দিচ্ছে বিজেপি। বাংলা থেকে যত বেশি সম্ভব আসন নিজেদের দখলে রাখার চেষ্টায় মরিয়া হয়ে উঠেছে তারা।

এ দিন দুপুর ১টায় বাগডোগরা বিমানবন্দরে নামেন মোদী। সেখান থেকে কাওয়াখালিতে নির্বাচনী সভায় রওনা দেন। সকাল থেকেই অগণিত সমর্থক সভায় এসে হাজির হয়েছেন। মঞ্চে উঠতেই ‘মোদী…মোদী’ স্লোগানে মুখর হয়ে ওঠে সভা। এই সভামঞ্চ থেকেই তৃণমূল নেত্রী ও তাঁর দলকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিলেন মোদী।