টিডিএন বাংলা ডেস্ক : মুকুল রায় সারদা কেলেঙ্কারিতে সিবিআইয়ের হাত থেকে পাড় পেয়ে যাচ্ছেন। এই নিয়ে আগেওবারবার প্রশ্ন তুলেছেন বিরোধীরা। এবার এই নিয়ে সরাসরি প্রধানমন্ত্রীকে চিঠি লিখলেন কংগ্রেস নেতা আবদুল মান্নান। তিনি চিঠিতে বলেন, এক সময় যারা বেআইনি অর্থ লগ্নি কেলেঙ্কারিতে মূল অভিযুক্ত ছিলেন, সেই তারাই এখন গলায় পদ্মফুল ঝুলিয়ে সিবিআইকে কলা দেখিয়ে আনন্দে গান গাইছেন।

ঠিক এমনই অভিযোগ তুলে এবার সারদা কাণ্ডের অন্যতম অভিযুক্ত মুকুল রায় ও অসমের উপমুখ্যমন্ত্রী হেমন্ত বিশ্বশর্মার দিকে আঙুল তুলে মোদীকে চিঠি লিখলেন কংগ্রেস নেতা আবদুল মান্নান। তাঁর স্পষ্ট অভিযোগ, শুধুমাত্র বিজেপিতে ভিড়েই অন্যতম অভিযুক্ত হওয়া সত্ত্বেও রক্ষাকবচ পেয়ে যাচ্ছেন এই সমস্ত নেতারা।

আগে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ও বলেছিলেন, সিবিআইকে কেন্দ্র ব্যবহার করে বিরোধীদের নাজেহাল করলে। আর যাঁরা মূল অভিযুক্ত তাঁরা বিজেপিতে যোগ দিয়ে পাড় পেয়ে যান। এবার একই সুরে মোদীকে বিষয়টি জানালেন মান্নান।

এদিনের চিঠিতে তাঁর স্পষ্ট দাবি, দল বা রংয়ের বাছবিচার না করে সিবিআই তদন্তের দ্রুত নিষ্পত্তি করে প্রতারিতদের টাকা ফেরাতে হবে। পাশাপাশি চিঠিতে তিনি স্পষ্ট জানান, বেআইনি অর্থ লগ্নি সংস্থাগুলি নিয়ে সিবিআইয়ের কাজকর্ম সম্পূর্ণরূপে একপেশে, অসম্পূর্ণ ও হতাশাজনক। মুকুল রায়ের মতো নেতারাই ছিলেন টাকা পাচারের মূল অভিযুক্ত। কিন্তু তিনি পরে বিজেপিতে যোগ দেন। একইভাবে অসমের হেমন্ত বিশ্বশর্মাও চিটফান্ডে অভিযুক্ত কিন্তু কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিতেই সিবিআইয়ের ধরাছোঁয়ার বাইরে চলে গিয়েছে সে।

কিছু দিন আগেও ধর্না মঞ্চে দাড়িয়ে এক চিঠি তুলে ধরে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের অভিযোগ ছিল, সারদায় যোগ রয়েছে অসমের মন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মার। তিনি টাকা নিয়েছিলেন সুদীপ্ত সেনের কাছ থেকে। আর যারা যারা দল ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিচ্ছে, ওমনি তারা চোর থেকে সাধু হয়ে যাচ্ছে। সেই অভিযোগকে নতুন করে উস্কে এবার মোদীকে চিঠি লিখলেন রাজ্যের বিরোধী দলনেতা আবদুল মান্নান।