সেখ সাদ্দাম হোসেন, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: “আফরাজুলকে নৃশংস ভাবে খুন করে ভারতের ইতিহাস, ঐতিহ্য ও সংস্কৃতিকে কলুষিত করেছে। এটা আধুনিক সমাজের কাছে লজ্জার বিষয়।” এমনই মন্তব্য করলেন ওয়েল ফেয়ার পার্টির রাজ্য সভাপতি মনসা সেন।

রাজস্থানের উগ্র হিন্দুত্বের হাতে নৃশংস ভাবে নিহত হয় মালদার কালিয়াচকের পঞ্চাশোর্দ্ধ আফরাজুল। পেটের টানে কাজে যায় ঐ ব্যক্তি। এলাকার মানুষের দাবি লাভ জেহাদ নয় আসলে ওর দোষ ও মুসলিম, তাই এই নারকীয় হত্যাকান্ড। টিডিএন বাংলাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে ওয়েলফেয়ার পার্টির রাজ্য সভাপতি মনসা সেন বলেন, “রাজস্থানে আফরাজুল এর যে নৃশংস হত্যাকান্ড এবং তারপরে লাভজেহাদের তত্ত্ব খাড়া করা।

এটি একটি অস্থিতিশীল নিমজ্জমান সমাজ ব্যবস্থা কে উস্কে দেয়। গেরুয়া শিবিরের আমদানি করা এই তত্ত্ব বুমেরাং হয়ে ফিরছে। দেশের ঐক্য এবং সংহিত কে বিপন্ন করে তুলছে। এই নৃশংস হত্যা অতিতেও হয়েছে ভবিষ্যতেও বন্ধ করা যাবেনা।” এর পরই তিনি বলেন, “এটা আধুনিক সমাজের কাছে লজ্জার যে পঞ্চাশ উর্দ্ধ ব্যক্তি কেউ লাভ জেহাদের তকমা দেওয়া হচ্ছে।” পার্টির পক্ষ থেকে আধুনিক ও প্রগতিশীল সমাজের কাছে আবেদন করে তিনি বলেন, “এই লাভজেহাদ তত্ত্ব আমাদের অতিত ইতিহাস, ঐতিহ্য আর সংস্কৃতি কে কলুষিত করছে।

অবিলম্বে এর বিরোধিতা এবং সচেতনতা গড়ে তুলতে হবে। গেরুয়া শিবিরের হিন্দুত্তের এজেন্ডা যদি এইভাবে সফল করতে থাকে তাহলে ভারতবর্ষের ঐক্য এবং সংহতি বিনষ্ট হতে বাধ্য।” রাজস্থান সরকারের কাছে অপরাধীর দীষ্টান্তমূলক শাস্তি এবং মৃতের পরিবারের উপযুক্ত ক্ষতিপূরন দাবী করে বলেন, “ঐক্য ও সংহতিকে রক্ষা করতে ওয়েলফেয়ার পার্টির ভূমিকা এর আগেও ছিল এখনও থাকবে। বাংলার মানুষ কে সজাগ ও সতর্ক করতে সদা সর্বদা প্রস্তুত তার পার্টি।”