নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: ভোটাধিকার কেড়ে নিয়ে শাসক তৃণমূল কংগ্রেস গুন্ডারাজ চালু করেছে বলে মন্তব্য করলেন দিল্লির জেএনইউ-র ছাত্রনেতা উমর খালিদ। মুর্শিদাবাদের জঙ্গিপুরে ওয়েলফেয়ার পার্টির প্রার্থী ডঃ এস কিউ আর ইলিয়াসের হয়ে প্রচারে এসে রাজ্য সরকারের তীব্র সমালোচনা করেন। কানহাইয়া কুমার, উমর খালিদ ও অনির্বান চক্রবর্তীর বিরুদ্ধে ‘আজাদীর স্লোগান’ দেওয়ার অভিযোগ উঠেছিল। জেলেও যেতে হয়েছে ওই তিন ছাত্র নেতাকে। পরে অবশ্য কোর্ট জামিন দিয়েছে।

এদিন জঙ্গিপুরে এসে উমর খালিদ বলেন,’মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলছেন নরেন্দ্র মোদি দেশের গণতন্ত্রকে শেষ করে দিচ্ছেন। কিন্তু পশ্চিমবঙ্গে ভোট করতে দেওয়া হচ্ছে না কেন? কেন পঞ্চায়েতে বোম বন্দুক নিয়ে ভোট লুট হয়েছে? বিরোধীদের নমিনেশন করতে দেওয়া হয়নি কেন? উন্নয়ন না করে মানুষের ভোটাধিকার কেড়ে নেওয়া হচ্ছে। আসলে দেশে নরেন্দ্র মোদি আর বাংলায় মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় লোকতন্ত্রকে খতম করার চেষ্টা করছেন।’

এদিন তিনি গুন্ডারাজের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়ানোর ডাক দেন। দিল্লির এই ছাত্র নেতা বলেন,’কংগ্রেস সাংসদ অভিজিৎ মুখার্জি জঙ্গিপুরের জন্য কী করেছেন? এখানকার শ্রমিকদের জন্য কী করেছেন? এখনও কেন মানুষ গরিব? কেন চিকিৎসা পাচ্ছে না? এখানকার লোক কারও দাস নয়। প্রণব বাবু জিতেছেন, তার বেটা এখন সাংসদ। কী করেছেন? রাজার ছেলে রাজা হবে নাকি? আসলে কংগ্রেস আরএসএস এক হয়ে প্রার্থী দিয়েছে জঙ্গিপুরে । এবারও যদি অভিজিৎ যেতেন তাহলে এখানকার মানুষের পরাজয় হবে।’

এদিকে ওয়েলফেয়ার পার্টির প্রার্থী ডঃ কাসেম রসূল ইলিয়াস বলেন,’দীর্ঘদিন সিপিআইএম রাজত্ব ছিল। কংগ্রেসের সাতবার এবং সিপিআইএমের সাতবার সাংসদ ছিল। কিন্তু দেশের মধ্যে সবচেয়ে বঞ্চিত কেন মুর্শিদাবাদ জেলা? সিপিআইএম,কংগ্রেসের সময় উন্নয়নের বদলে বোমাবাজি, খুন চলতো। এখন তৃণমূল কংগ্রেসের সময় ভোট দিতে দেওয়া হচ্ছে না। গুন্ডাগিরি চলছে। কেন পর্যাপ্ত ট্রেন নেই? দমকল কোথায়? আর কতদিন মানুষ করল,মুম্বাই, ব্যাঙ্গালোর, কলকাতায় লেবারের কাজ করবে? এসসি এসটি ও সংখ্যালঘু মুসলিম অধ্যুষিত বলেই কি এই বঞ্চনা?’