সেখ সাদ্দাম হোসেন, টিডিএন বাংলা, সিতাপুর : “উচ্চশিক্ষাই হল কোনো জাতির এগিয়ে যাওয়ার মূল উপকরণ। তাই জাতির উন্নতির জন্য বিশ্ববিদ্যালয় দিন, সাইকেল নয়।” মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে রাজ্য সরকারের মনোভাবের কথা বলতে গিয়ে এমনই মন্তব্য করেন আল ফারাহ মিশনের সাধারণ সম্পাদক পীরজাদা তামীম সিদ্দিকী। বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবিতে আন্দোলন চলছিল অনেক দিন ধরেই। কিছু দিন আগে বিধানসভা অভিযান করে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবিতে স্মারকলিপি জমাদেয় এস আই ও । তাতে তাদের আশ্বাস দেন শিক্ষা মন্ত্রী। আশায় বুক বেঁধে ছিল মুর্শিদাবাদ বাসী। কিন্তু না, সে আশায় জল ঢেলে দিলেন রাজ্য সরকার। বুধবার বিধানসভার শীতকালীন অধিবেশনের শেষ দিন বিশ্ববিদ্যালয় প্রসঙ্গ উঠতে রাজ্য সরকারের মনোভাব প্ৰকাশ হয়ে পড়ে। খুলে যায় তার মুসলিম তোষণের মুখোশ।টিডিএন বাংলায় খবর প্রকাশ হবার পড়েই বিক্ষোভে ফেটে পড়েন সাধারণ মানুষ থেকে বুদ্ধিজীবীরা। এ প্রসঙ্গে বলতে গিয়ে পীরজাদা তামিম সিদ্দিকী টিডিএন বাংলাকে বলেন, “কিছুদিন আগে শিক্ষা মন্ত্রীর এক বিবৃতিতে জানা গিয়েছিল মুর্শিদাবাদে বিশ্ব বিদ্যালয় হবে।কিন্ত গতকাল বিধান সভায় রাজ্য সরকার জানিয়ে দেয় মুর্শিদাবাদে কোনো বিশ্ববিদ্যালয় করার পরিকল্পনা নেই। এটা খুব হতাশ জনক।” তিনি আরো বলেন, “মুখেই তোষণ আসলে শোষণ। শিক্ষা ক্ষেত্রে মুসলিমদের পিছিয়ে রাখার চক্রান্ত কংগ্রেস- বাম জামান থেকেই রয়েছে।বর্তমান সরকার তার ব্যতিক্রম নয়। তাই মুসলিম অধ্যুষিত এলাকা বলেই এভাবে অবহেলার স্বীকার মুর্শিদাবাদ।” আলফারাহ মিশনের সাধারণ সম্পাদক আরও যোগকরেন, “কিছু সাইকেল দিয়ে লোকদেখানো উন্নয়ন না করে মুসলিমদের গঠন মূলক উন্নয়নের দিকে নজর দিক রাজ্য সরকার। যেখানে বিশ্ববিদ্যালয় রয়েছে সেখানে এখন আর না দিয়ে যেখানে নেই সেখানে দিন। তেলা মাথায় তেল না দিলেও হবে।”