টিডিএন বাংলা ডেস্ক: লোকসভা ভোটে রাজ্যে বিজেপির উত্থানের পর সবচেয়ে বড় রাজনৈতিক ইভেন্ট। ২১ জুলাইয়ের সমাবেশ মঞ্চ থেকে তৃণমূল নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় কী বার্তা দেন, সেই দিকে নজর ছিল রাজ্যবাসীর। ইভিএম নয় ব্যালট চাই। মমতার কণ্ঠে এই স্লোগানই এদিন অনুরণিত হল ধর্মতলা থেকে বাংলার সর্বত্র।

তৃণমূল নেত্রী ফের একবার ইভিএমে নির্বাচনের নিরপেক্ষতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে, ব্যালটে ভোট ফিরিয়ে আনার দাবি জানান। এদিন মমতা বলেন, আমেরিকা ও ইউরোপের দেশগুলিতে ইভিএম নয় ব্যালটে ভোট হয়। তাহলে ভারতে কেনও ইভিএম ছেড়ে ব্যালটে ভোট হবে না। প্রসঙ্গত ১৯৯৩ সালে দেশ জুড়ে নির্বাচনে ভোটার আইডি কার্ড প্রচলন করার দাবিতে সরব হয়েছিলেন মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। আর তার জেরেই দেশজুড়ে বর্তমানে ৮৫ কোটি লোকের রয়েছে ভোটার পরিচয় পত্র। আর এবার ব্যালট ফিরিয়ে আনার দাবিতে সরব সেই মমতা।

কাটমানি নিয়ে তৃণমূলকে বারেবারে ফালাফালা করেছে বিজেপি। এই নিয়ে ২১-এর মঞ্চ থেকে বিজেপিকে পাল্টা আঘাত হানতে ছাড়লেন না মমতা। তাঁর স্লোগান, ব্ল্যাকমানি ফিরিয়ে দাও। নোটবন্দির সময় টাকা আত্মসাৎ করা হয়েছে বলেও অভিযোগ করেন তিনি। সাধারণ মানুষের টাকা ফেরানোর দাবিতে সরব মমতা। উজালার কাটমানির হিসেবেও চেয়ে তৃণমূলকর্মীদের রাস্তায় নামার নির্দেশ দিয়েছেন তৃণমূল নেত্রী। এদিনের জনসভা থেকে মমতার অভিযোগ, ‘‘গত লোকসভা নির্বাচনে হিসেব বহির্ভূত টাকা খরচ করেছে বিজেপি। বিদেশ থেকেও টাকা সাহায্য পেয়েছে তারা।’’ সেই টাকার হিসেব দেওয়ার দাবিও তুলেছেন মমতা। দলীয় কর্মীদেরও কড়া বার্তা দিলেন তৃণমূল নেত্রী। কর্মীদের রাস্তায় নামার নির্দেশ দিয়েছেন তিনি। সমাবেশ মঞ্চ থেকে তিনি বলেন, ‘‘ঘরে বসে কখনই রাজনীতি করা যাবে না। রাস্তাই আমাদের রাস্তা দেখাবে।’’

এদিন মমতার স্লোগানে, বার্তায় বারেবারে অনুরণিত হল ঘুড়ে দাঁড়াবার ডাক। ব্যালট থেকে কাটমানি- সবক্ষেত্রেই ২১-কে সামনে রেখেই যে ২১ এর মঞ্চ থেকে সুর বেঁধে দিতে দিলেন তা বলাই যায়।