ছবি : দ্য ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস

নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: দেশের এই দুর্দিনে তবলীগ জামাত ও দিল্লীর মারকাজ নিয়ে কোনও দ্বন্দ্ব করা উচিত নয়, এখন আপসে ঐক্যবদ্ধ ভাবে করোনার মুকাবিলা করার সময়। এমনই মন্তব্য করলেন আসানসোলের নূরী মসজিদের ইমাম মাওলানা ইমদাদুল্লাহ রশিদী। দুই বছর আগে রামনবমীর সময় নিজের ছেলেকে হারাতে হয়েছে ইমামকে। দশম শ্রেণীর সিবগাতুল্লাহর মৃত্যুর পরেও যে ধর্য্য ও দৃঢ়তার নজির দেখিয়েছেন তা গোটা ভারতে সেদিন নজির তৈরি করেছিল। সাম্প্রদায়িক শক্তি ছেলেকে মেরেছে, তার পরেও তিনি থানায় অভিযোগ না করে পুলিশ ও এদেশের সরকারের হাতে বিষয়টি ছেড়ে দিয়েছিলেন। দোষীরা ছাড়া পেয়েছে। তবুও ইমাম বলেছেন, বিচার কাল কিয়ামতের দিন হবে। এই পৃথিবীতে আমার ছেলের জন্য আর কারও মায়ের কোল খালি হোক তা আমি চাইনা। কোনও পাল্টা মন্তব্য না করে সকলকে ক্ষমা করে দিয়ে সম্প্রীতির প্রতীক হয়েছিলেন। দেশের দুর্দিনে তিনি সবসময় শান্তি ও ঐক্যের বার্তা দিয়েছেন।
করোনার বিরুদ্ধে গোটা দেশ ঐক্যবদ্ধভাবে যুদ্ধ করছে। এরই মধ্যে তবলীগ জামাতকে নিয়ে মিডিয়া ও কিছু নেতা যে সাম্প্রদায়িক প্রোপাগান্ডা করছে তা উদ্দেশ্যপ্রণোদিত বলে ইমাম রশিদি মনে করেন। তিনি টিডিএন বাংলাকে বলেন, প্রশাসনকে বলার পরেও কোনও বাসের ব্যবস্থা করেনি। হটাৎ লকডাউন হলে কিভাবে বাড়ি ফিরবে। প্রশাসন নিজেদের দোষ ঢাকতে এখন এইসব করছে। করোনার বিরুদ্ধে যখন সবাই লড়াই করছে তখন এই ধরনের প্রচার ক্ষতি করবে।
আসানসোলের ইমাম জুম্মার নামাজ পড়ে মুসলিমদের উদ্দেশ্যে বলেন, ডাক্তারের পরামর্শ মেনে সোশ্যাল ডিস্ট্যান্স বজায় রাখুন। এখন বেশি করে আল্লাহ ডাকতে হবে। নিজেদের পাপের জন্য আল্লাহর কাছে কাঁদতে হবে। আল্লাহর কাছে বলতে হবে তিনি যেন করোনা দূর করে দেন। তবে এইসময় ডাক্তার ও বিশেষজ্ঞ পন্ডিতদের মতামতকে গুরুত্ব দিতে হবে। মসজিদে অল্প কিছু লোক জামাতে নামাজ পড়বেন। বাকিরা বাড়িতে নামাজ আদায় করুন। আমার মসজিদেও তেমন হচ্ছে। আল্লাহর কাছে দোয়া তিনি যেন ফের মসজিদে সকলকে নামাজ পড়ার সুযোগ করে দেন।