নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: বিভিন্ন ভাবে এদেশের মানুষ রোজাকে সম্মান জানান। কিছুদিন আগে ফারাক্কার ওসি দুঃস্থদের ইফতার সামগ্রী দেন। এবার আরেক ওসি। মন ও শরীরের প্রশান্তির জন্য প্রতিবছর তিনটি রোজা রাখেন পুলিশ আধিকারিক সুমিত তালুকদার। বর্তমানে সুমিত তালুকদার মুর্শিদাবাদের রানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত আধিকারিক। সুমিত বাবু জানান পুলিশের সাথে জনসাধারণের সম্পর্ক আরও সুনিবিড় করতে মুর্শিদাবাদের প্রতিটি থানাতেই প্রতিবছর ইফতার মজলিশের ব্যবস্থা করা হয়। তিনি আরও বলেন যে রোজার মাসে অপ্রীতিকর ঘটনা, অনেকটাই কমে। তিনি জানান ভগবানগোলা থানায় কর্মরত অবস্থায় থানায় আয়োজিত ইফতার মজলিশের দিন প্রথম রোজা রাখেন এবং রোজা রাখার পর শরীর ও মনে প্রশান্তি পান।

সেই থেকে প্রায় পাচ বছর যাবৎ রমযান মাসে তিনটি রোজা রাখেন তিনি।রমযান মাসে প্রথম এবং শেষ রোজা রাখার পাশাপাশি থানায় আয়োজিত ইফতার মজলিশের দিন মিলিয়ে মোট তিনটি রোজা রাখেন তিনি। সুমিত বাবু জানান এমনি রাতের খাওয়া দাওয়া করতে রাত একটা-দেড়টা বেজে যায়। তারপর সারাদিন নির্জলা উপবাস থেকে সন্ধ্যাবেলায় সবার সাথে ইফতারে সামিল হওয়ার অনুভুতিই আলাদা।

শুক্রবার রানীনগর থানায় ইফতার মজলিশের আয়োজন করা হয়েছিল। যদিও শারীরিক অসুস্থতার কারনে এদিন রোজা রাখতে পারেননি তিনি। তবুও ইফতার মজলিশ নিয়ে তার আয়োজনের কোন ত্রুটি ছিলনা। এদিনের ইফতার মজলিশে উপস্থিত ছিলেন মহকুমা পুলিশ আধিকারিক সন্দীপ সেন, বিডিও পার্থ চক্রবর্তী, জেলা ইমাম নিজামুদ্দিন বিশ্বাস প্রমুখ। এদিন প্রায় দেড় হাজার মানুষ ইফতার মজলিশে সামিল হন।ইফতার শেষে থানার মাঠেই নামাজে অংশ নেন মুসল্লিরা। ইফতারের আগে মোনাজাতেও সামিল হন সুমিত বাবু।