আলি আকবর, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : বাংলার সম্প্রীতি রক্ষায় নাগরিকের কর্তব্য এই বিষয়ে আলোচনা ​করে সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের ১৪ তম প্রতিষ্ঠা দিবসে রাজ্য জুড়ে সম্প্রীতির আহ্বান। আজ সকাল ১০ টা থেকে​  কলকাতা ইউনিভার্সিটি ইনস্টিটিউট অডিটোরিয়ামে হিন্দু, মুসলিম, বৌদ্ধ, খ্রীষ্টান ধর্মের প্রতিনিধিরা অনুষ্ঠানে উপচে পড়া ভিড়ে দেশ ও রাজ্যের সম্প্রীতি রক্ষায় সকলকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানান। বেঙ্গল​ বুদ্ধিস্ট অ্যাসোসিয়েশন এর হেমেন্দু বিকাশ চৌধুরী বলেন বৌদ্ধ পূর্ণিমার ছুটি আদায়ে কামরুজ্জামান আমাদের সাথে ছিল,এটা সম্প্রীতির অন্যান্য উদাহরণ। কল্যাণী বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ডঃ গৌতম পাল বলেন কয়েকশো বছরের হিন্দু মুসলিম সম্পর্ক অত ঠুনকো নয়, যে কোন একটা সামান্য ঘটনায় তা শেষ হয়ে যাবে। রাজ্য মাইনোরিটি কমিশন এর চেয়ারম্যান জনাব ইন্তাজ আলী​ শাহ বলেন,  “আমি সব সময় রাজ্যের সব সংখ্যালঘুুদের স্বার্থে কাজ করে যাবো।”
বিশ্ব কোষ পরিষদের শ্রী পার্থ  সেনগুপ্ত বলেন যে কাজ সংখ্যাগুরুদের করা উচিত ছিল সেই উদ্দ্যোগ সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশন নিয়ে কাজ করছে সম্প্রীতির  স্বার্থে তা সাধুবাদ​ যোগ্য‌
মানবাধিকার কর্মী ছোটন দাস বলেন  সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টা থাকলে কোন অশুভ শক্তি নিজেদের সম্প্রীতি নষ্ট করতে পারবে না।
গোবরডাঙা রামকৃষ্ণ মিশনের স্বামী সত্যরূপানন্দ বলেন হিন্দুর দান করা জমিতে মুসলিমদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান শেষে, মুসলিমদের দান করা জমিতে হিন্দুদের ধর্মীয় অনুষ্ঠান এতো দেশের সংস্কৃতি, এটা কেউ কোনদিন ভাঙতে পারবে না।
সাংসদ আহমদ হাসান ইমরান বলেন পশ্চিমবঙ্গে গুজরাট ও আসামের কোন প্রভাব এখানে আমরা ফেলতে দেবো না। আমরা হিন্দু মুসলিম বৌদ্ধ খ্রীষ্টান কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে একসাথে আমাদের দীর্ঘদিনের ঐতিহ্য নিয়েই বেঁচে থাকব। উপস্থিত ছিলেন, মাওঃ আব্দুল মাতিন,খ্রীষ্টিয় পরিষদের কিশোর অধিকারী, পীরজাদা তাফহিমুল ইসলাম, সুখনন্দন সিং আলুওয়ালিয়া সহ অন্যান্যরা।
 
সারা বাংলা সংখ্যালঘু যুব ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক মহঃ কামরুজ্জামান বলেন বর্তমান পরিস্থিতিতে আমাদের এই কনভেনশন সারা বাংলার সম্প্রীতি রক্ষায় এক ঐক্যের বার্তা দিতে চাই। বিচ্ছিন্নতাবাদী শক্তির বিরুদ্ধে আমাদের সকলের ঐক্যবদ্ধ প্রচেষ্টা দেশ ও রাজ্যের কল্যানে কাজ করে যাবে।
Not available