সঞ্জয় রায়চৌধুরী, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: ১০ই এপ্রিল ২০১৮ তে প্রেসিডেন্সির ছাত্র দের ওপর তৃণমূলের গুন্ডা বাহিনী মারধর করে। ঘটনার এক বছরে তারই প্রতিবাদ স্বরূপ প্রতীকী প্রতিবাদ জানিয়ে মিছিল ও ৫ মিনিটের জন্য কলেজ স্ট্রিটের রাস্তা অবরোধ করে প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা।

বুধবার অবরোধের শুরুতেই পুলিশ তাদেরকে অবরোধ তুলে নিতে বলে ও ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দেয় বলে। ছাত্ররা প্রতিবাদ করলে তাদের উপর লাঠিচার্জ করা হয় বলে অভিযোগ। এরপরই ছাত্র ছাত্রীরা এই ঘটনার দিকে প্রেসিডেন্সির গেটের সামনে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করে। এখনো পর্যন্ত অবরোধ চলছে।

ছাত্রদের তরফে জানা গেছে তাদের এই অবস্থান বিক্ষোভ কে অন্যান্য বিশ্ববিদ্যালয়ের বাম মনস্ক ছাত্র ছাত্রীরা সমর্থন জানিয়েছে।

আইসি ও এসএফআই দুই ছাত্র সংগঠনের ওপর পুলিশের লাঠিচার্জ এর প্রতিবাদে অনির্দিষ্টকালের জন্য অবস্থান বিক্ষোভ শুরু করলো প্রেসিডেন্সি বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রছাত্রীরা।

১৬ ই সেপ্টেম্বর ২০১৮অগ্নিগর্ভ হয়ে উঠেছিল এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তর মার্কেট বাগরি। প্রায় ছয় মাসেরও বেশি সময় অতিক্রম হয়ে গেছে। তবুও আজও পরিবর্তন হয়নি বাবলের ধ্বংসাত্মক চেহারার তাই যত দ্রুত সম্ভব এশিয়ার বৃহত্তম মার্কেট কে তার গতিপথে ফিরিয়ে দিতে বদ্ধপরিকর প্রশাসন।

বুধবার বাগড়ীর বর্তমান হাল হকিকত খতিয়ে দেখতে উপস্থিত হলেন দমকল মন্ত্রী সুজিত বসু। এদিন তিনি আশ্বস্ত করেন ১৫ দিনের মধ্যে বাগরি ফিরে পাবে তার পুরনো রূপ। তবে বেশ কিছু বিষয় চিন্তায় ফেলেছে দমকলমন্ত্রী সুজিত বসু কে। যদিও বিষয়গুলি নিয়ে আলাপ আলোচনার মাধ্যমে সমাধানের রাস্তা বের করার আশ্বাস দিয়েছেন মন্ত্রী।

ছয় মাসেরও বেশি সময় ধরে বন্ধ রয়েছে ব্যবসায়ীদের ব্যবসা। তাই বাগরির আগুন নিভে গেলেও ব্যবসায়ীদের মনে আগুন আজও জ্বলছে। এখন দেখার বিষয় দমকলের দেওয়া বেশ কিছু নির্দেশিকা পালন করার পর এশিয়ার অন্যতম বৃহত্তম মার্কেট বাগরি তার নয়া রূপে কবে সেজে উঠে।

Advertisement
mamunschool