নিজস্ব ছবি

বেলাল মোমিন, টিডিএন বাংলা, ফারাক্কা : মায়ের চোখের জল বাঁচাতে পারে না ছেলেকে কিন্তু রক্ত দান করলে বাঁচতে পারে একটি জীবন। ফারাক্কার বেনিয়াগ্রাম অঞ্চলে অঙ্কুর শিশু শিক্ষা নিকেতন, ফিউচার ইন্ডিয়া ইনফোটেক কম্পিউটার সেন্টার এবং মধ্যবঙ্গবান্ধব পত্রিকার যৌথ উদ্যোগে এক রক্তদান শিবির ও চক্ষু পরীক্ষা শিবিরের আয়োজন করা হয়। মহিলা সহ ৫০ জন স্বেচ্ছায় রক্তদান করেন।

এছাড়াও ৬৯ জন চক্ষু পরীক্ষা করতে আসেন যাদের মধ্যে ১৭ জনকে বিনামূল্যে চোখের অপারেশন করানো হবে জানা গেছে। কম্পিউটার সেন্টার এবং অঙ্কুর শিশু শিক্ষা নিকেতনের কর্ণধার বিশ্বজিৎ সিনহা ও হাজিকুল আলম এবং পত্রিকার সম্পাদক কল্যান কুমার মুখোপাধ্যায় টিডিএন বাংলাকে জানান, থ্যালাসেমিয়া, অ্যাক্সিডেন্ট জনিত ব্যাক্তিদের রক্তের অভাব মোচন করা এবং বৃদ্ধ, অসহায় মানুষদের দৃষ্টিশক্তির সমস্যা দূর করাই আমাদের শিবিরের মূল উদ্দেশ্য।

নিজস্ব ছবি

এদিন ৭৩ বারের মত স্বেচ্ছায় রক্তদান করলেন সমাজ সেবী কামিনী রঞ্জন বালা। বর্তমানে তিনি রক্তদাতা হিসেবে রাজ্যে নবম স্থানে রয়েছেন। প্রথমবার রক্ত দিতে আসা স্থানীয় মাদ্রাসার দুই ছাত্র আনোয়ার হোসেন (২০) এবং মোঃ মফিজ (১৮) তাদের অনুভূতির কথা জানাতে গিয়ে বলেন, প্রথমে ভয় ভয় মনে হলেও পরে মানসিকভাবে তৃপ্তি পেলাম।

রক্তদাতাদের উদ্বুদ্ধ করতে শিবিরে উপস্থিত ছিলেন বিধায়ক মইনুল হক, আইসি উদয় শঙ্কর ঘোষ, প্রাক্তন এম পি আবুল হাসনাত খান, ডঃ সজল কুমার পণ্ডিত, সভাপতি আনজুম আরা খাতুন, সোমেন পান্ডে, অরুনময় দাস, গোরাচাদ বিশ্বাস ছাড়াও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ।