নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ : বৃহস্পতিবারই নদীয়ার একটি সভা থেকে রাজ্যের প্রথম কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক শিল্যান্যাস করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। একদিকে নদীয়ায় যেভাবে একের পর এক বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার উদ্যোগ নিচ্ছে রাজ্য সরকার তাতে গোটা নদীয়া জেলাজুড়ে খুশির জোয়ার বইছে, ঠিক তেমনি অন্যদিকে ৮০ লক্ষ জনবসতির জেলা মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয় না থাকলেও দ্রুত কোনো পদক্ষেপ না নেওয়ায় রাজ্য সরকারের উপর ক্ষোভে ফুসছেন মুর্শিদাবাদবাসী। জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার ঘোষণার প্রায় এক বছর অতিবাহিত হতে চললেও এখনও পর্যন্ত কোথায় বিশ্ববিদ্যালয় হবে তার স্থান নির্ধারণ করতে পারেনি সরকার। কবে শিল্যান্যাস হবে কিংবা আদৌ শিল্যান্যাস হবে কি না? জানেনা জেলাবাসী! পঞ্চায়েত ভোটের আগে তড়িঘড়ি বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘোষণা দিলেও এখনও পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে না উঠায় চরম ক্ষোভে আগামী লোকসভাতে উচিত শিক্ষা দেওয়ার হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন জনতা।

উল্লেখ্য, কন্যাশ্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য গতবছরের আগস্ট মাসে নদীয়ায় কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার ঘোষনা করেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তারপরেই দ্রুত গতিতে স্থান ঠিক করে কন্যাশ্রী বিশ্ববিদ্যালয়ের শুভ সূচনা করেন তিনি। কিন্তু গতবছরের মার্চ মাসে মুর্শিদাবাদে বিশ্ববিদ্যালয়ের কথা ঘোষণা করলেও এখনও পর্যন্ত নানারকম টালবাহানায় আনুষ্ঠানিক শিল্যান্যাস হয়নি বিশ্ববিদ্যালয়ের। কোথায় বিশ্ববিদ্যালয় হবে না নিয়েও সন্দিহান জেলাবাসী। রাজ্য সরকারের এই দ্বিমুখী আচরণে কার্যত ক্ষুব্ধ জেলার বাসিন্দারা। সোশ্যাল মিডিয়ায় রাজ্য সরকারের বিরুদ্ধে তীব্র ক্ষোভ পরিলক্ষিত হওয়ার পাশাপাশি আগামী লোকসভা নির্বাচনের আগেই আনুষ্ঠানিক শিল্যান্যাস না করলে তৃণমূল কে উচিত শিক্ষা দেওয়া হবে বলেও হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন আমজনতা। রাণীনগরের মফিজুল ইসলাম, হরিহরপাড়ার সফিকুল ইসলাম, বহরমপুরের কৌশিক দশ, অচিন্ত সরকার, জঙ্গিপুরের মইদুল ইসলাম, খায়রুল আলম দের অভিযোগ, জেলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্ররিশ্রুতিই সার, বিশ্ববিদ্যালয় গড়ার ব্যাপারে কোনো উদ্যোগ লক্ষ করা যাচ্ছে না সরকারের। অবিলম্বে জেলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন না হলে আগামীতে তৃণমূল সরকারকে চরম হুঁশিয়ারি দিচ্ছেন তারা। শুধু গুঁটিয়েক ব্যক্তিই নয় জেলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘোষণা কার্যকর না হওয়ায় তীব্র ক্ষোভ ফুসছেন জেলাবাসী।