নিজস্ব প্রতিনিধি, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: বেকারত্বের জ্বালা সইতে না পেরে এপর্যন্ত রাজ্যে যারা আত্মহত্যা করেছেন তাদের আত্মার শান্তি কামনা করে স্মরণ সভা করলো এসএসসি ছাত্র যুব অধিকার মঞ্চ। শনিবার কলকাতা প্রেস ক্লাবের সামনে মোমবাতি জ্বালিয়ে সভার আয়োজন করে এসএসসির নবম থেকে দ্বাদশ শ্রেনিতে ওয়েটিং লিষ্টে নাম থাকা প্রায় শ’চারেক অনশনকারী।

১৭ দিন থেকে আমরণ অনশন চালিয়ে যাওয়া চাকরিপ্রার্থীদের সাথে এদিনের সভায় উপস্থিত ছিলেন অম্বিকেশ মহামাত্র, সুপ্রিম কোর্টের প্রাক্তন বিচারপ্রতি অশোক গাঙ্গুলি প্রমুখ। কবি শঙ্খঘোষ আসার কথা থাকলেও শারীরিক অসুস্থতার কারণে উপস্থিত হতে পারেন নি।

তবে তিনি লিখিত এক বিবৃতিতে জানিয়েছেন, স্কুল সার্ভিস পরীক্ষায় উত্তীর্ণ এবং শিক্ষকতার উপযুক্ত তিন শতাধিক যুবক-যুবতী কাজের প্রার্থনায় আজ প্রায় ১৬দিন ধরে খোলা আকাশের নীচে অনশনরত৷ রোদ-বৃষ্টি-ঝড়ে এদের মধ্যে জনা পঞ্চাশেক গুরুতর অসুস্থ অবস্থায় স্থানান্তরিত হয়েছেন৷ শহরের প্রায় কেন্দ্রস্থলে সবারই চোখের সামনে এমনও যে ঘটে চলেছে তার জন্য রাজ্যবাসী হিসেবে আমাদের সকলেরই লজ্জা হওয়া উচিৎ৷ এই লজ্জা থেকে ত্রান পাবার কোনো উপায় বার করা যায় কিনা,কর্তপক্ষকে সে কথাটা একবার ভেবে দেখবার অনুরোধ জানাই৷

এদিন সন্ধ্যায় অসহায় চাকরিপ্রার্থীদের হাতে দেখা যায় ‘শহীদ অতনু মিস্ত্রি অমর রহে’, ‘হয় চাকরি নয় মৃত্যু’ প্রভৃতি স্লোগান সম্বলিত প্লাকার্ড। এদিকে চাকরি না পাওয়ায় মানসিক অবসাদের জেরে বীরভূমের এক ইলেকট্রিক্যাল ইঞ্জিনিয়ারিং এর আত্মঘাতী হবার খবর পাওয়া গেছে। আত্মঘাতী ঐ যুবকের নাম উৎপল ঘোষ (২৬) বাড়ি সিউড়ি থানার দুই নম্বর ওয়ার্ডের সমন্বয় পল্লীতে। শনিবার সকালে নিজের রুমেই গলায় কাপড় দিয়ে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে পড়ে সে।