টিডিএন বাংলা ডেস্ক: এরকম ঘটনা আগে কখনও ঘটেছে কিনা, কেউ মনে করতে পারছেন না। হঠাৎ দিঘার সমুদ্রে জলের রঙ বদল। নীলচে জল বদলে কাদা-ঘোলাটে বর্ণ ধারণ করেছে। জলে স্নান করতে নামছেন না পর্যটকরা। কিন্তু কী কারণে এমন হল? পরিস্থিতি খতিয়ে দেখছেন সমুদ্র বিশেষজ্ঞরা। পাশাপাশি, কোনও অঘটন যাতে না ঘটে, তারজন্য চলছে সতর্কতামূলক মাইকিং।

ওল্ড থেকে নিউ, পুরো দিঘাতে সমুদ্রের জল বুধবার হঠাৎ করে রং পরিবর্তন করেছে। একেবারে ঘোলাটে কাদা মিশ্রিত রং। ২৪ ঘন্টা আগেও দিঘার সমুদ্রের জলের রং এমন ছিল না । বুধবার এমন ঘোলাটে রঙের জন্য বহু পর্যটক সমুদ্রে স্নান করতে নামেননি। যেসব পর্যটকরা সমুদ্রে স্নান করতে নেমে ছিলেন , তাদের জামা কাপড়ে সেই কাদা জল লেগে যায়।

স্থানীয় ব্যবসায়ী থেকে বার বার দিঘায় বেড়াতে আসা পর্যটকগণের দাবি, “ এমন কাদা মিশ্রিত ঘোলাটে জল এর আগে কখনও দেখিনি।” কিন্তু দিঘার সমুদ্রের জলের হঠাৎ করে এমন রং পরিবর্তনের কারণ কী? তা নিয়ে পর্যটকদের মতো ধন্দে রয়েছে, স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনও। কোনওরকম অপ্রীতিকর ঘটনা যাতে না ঘটে, সেজন্য সকাল থেকেই দিঘা সৈকতে কড়া নজরদারি চালাচ্ছে বিপর্যয় মোকাবিলা বাহিনী, নুলিয়া ও পুলিস। হঠাৎ করে দিঘার সমুদ্রের জল এমন ঘোলাটে বর্ণ হয়ে যাওয়ার পিছনে কারণ কী হতে পারে? সমুদ্র বিজ্ঞানী আনন্দদেব মুখোপাধ্যায়ের কথায়, “দিঘার সমুদ্রে সেডিমেন্ট লোড বেড়ে গিয়েছে। অর্থাৎ জলে বালির ও কাদার পরিমাণ খুব বেড়েছে। সুবর্ণরেখায় বাঁধ দেওয়ার জন্য এমনটা ঘটতে পারে।”

দিঘা মানেই পর্যটকদের উইকএন্ড, দেদার মজা। সেই মজায় ভাটা পড়ল। এখন কেউ ভয়ে জলে নামছেন না। এই অবস্থা কবে কাটবে, সেই দিকেই তাকিয়ে পর্যটকরা।