প্রতীকী

টিডিএন বাংলা ডেস্ক : সাজার মেয়াদ পার হয়ে গেলেও রোহিঙ্গা শরণার্থী  বাসি ওলি আহমেদকে এখনও মুক্তি না দেওয়ায় আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করা হলো বিদেশ মন্ত্রকের সচিব বিজয় কেশব গোখলে এবং রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিব অত্রি ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধে। ২০১৬ সালের মে মাসে উত্তর দিনাজপুরে ভারত-বাংলাদেশ সীমান্ত এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয়  বাসি ওলি আহমেদকে। তাঁর বিরুদ্ধে বেআইনি অনুপ্রবেশের মামলা দায়ের করে পুলিশ। ২০১৮ সালের আগস্ট মাসে তাঁর দু-বছরের জেল হয়। বন্দি ওলি আহমেদের আইনজীবী কিশোর মুখোপাধ্যায়ের বক্তব্য, রায়ে এটাও বলা হয়েছিল যে,সাজা শেষ হলে ওলিকে তাঁর বাসস্থানে ফিরিয়ে দিতে হবে। তা সত্বেও কোনো উদ্যোগ নেওয়া হয়নি। সাজার মেয়াদ কেটে গেলেও ওলি বর্তমানে দমদম সেন্ট্রাল জেলে বন্দি জীবন কাটাচ্ছেন। জেলেবন্দি অবস্থাতেই আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন তাঁকে শরণার্থী হিসেবে ঘোষণা করে। বিচার পেতে গত বছর ১০ই ডিসেম্বর হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন ওলি আহমেদ। আদালত কেন্দ্র ও রাজ্যকে নির্দেশ দেয় নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে ওলিকে যাতে মুক্তি দেওয়া হয়। কিন্তু মাস গড়ালেও সেই নির্দেশ পালন করা হয়নি বলে অভিযোগ। ওলি আহমেদের পরিবারের সদস্যদেরও ভারতীয় শরণার্থী হিসেবে ঘোষণা করেছে আন্তর্জাতিক মানবাধিকার কমিশন। তাঁর পরিবারের সদস্যরা ভারতেই আছেন। কিন্তু রাজ্য এবং কেন্দ্র ওলির বিষয়ে আজও কোন সিদ্বান্ত কেন নেয়নি সেই অভিযোগ তোলেন ওলির আইনজীবী। সাজার মেয়াদ শেষ হলেও কেন তাঁকে মুক্তি দিচ্ছে না এই প্রশ্নেই বিদেশ মন্ত্রকের সচিব এবং রাজ্যের স্বরাষ্ট্র সচিবের বিরুদ্ধে আদালত অবমাননার মামলা দায়ের করা হয় কলকাতা হাইকোর্টে।