নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, হাওড়া : হাওড়া জেলার উলুবেড়িয়া লোকসভার আমতা মহকুমার খোসলপুরের কাস্তসাংরা গ্রামের অধিবাসী সাইফা খাতুন এখন বিস্ময় বালিকা। কখনও স্কুলের বারান্দা অবধি যাওয়া হয়নি তার! তবে বাড়িতে পড়াশুনা করেই ৮ বছর বয়সে মাধ্যমিকের বই শেষ করে ফেলেছিল সাইফা। এইবার মাত্র ১২ বছর বয়সে এসেই মাধ্যমিক পরীক্ষার প্রস্তুতি নিচ্ছে সে।

যারা কোনও স্কুলের ছাত্র বা ছাত্রী হিসেবে মাধ্যমিকে বসে না, সেইসব প্রার্থীদের স্কুল ফাইনালে বসার জন্য একটি টেস্ট দিতে হয়। সেটা পর্ষদ নিজেদের অফিসেই নিয়ে থাকে। ৫০ নম্বরের এই পরীক্ষায় বয়সের তুলনায় দারুণ ফল করেছে সইফা। বাংলায় ৪৮, ইংরেজিতে ৪২, গণিতে ৪০, ভৌতবিজ্ঞানে ৫৮, জীবনবিজ্ঞানে ৬৮, ইতিহাসে ৫৬ এবং ভূগোলে ৬০ শতাংশ নম্বর পেয়েছে সে।

হাওড়া মধ্যশিক্ষা পর্ষদের সভাপতি কল্যাণময় গঙ্গোপাধ্যায় সংবাদমাধ্যমকে জানান, কখনও প্রথাগত স্কুলে পড়েনি সাইফা। হাওড়ার সালকিয়ার এএস হাইস্কুলের বহিরাগত ছাত্রী হিসেবে ২০১৯ সালে মাধ্যমিক পরীক্ষা দেবে এই কিশোরী।

এদিকে স্কুলে না যাওয়ার বিষয়ে কোনো আফসোস নেই সাইফার। তাঁর যুক্তি রবীন্দ্রনাথ, আশাপূর্ণা দেবী, কেউই স্কুলে গিয়ে পড়াশোনা করেননি। তাই বলে কি তারা অজ্ঞ ছিলেন? তাঁর কথা বিস্ময়টা আরও বাড়িয়ে দেয়, যখন সাইফার কণ্ঠে শোনা যায়, শুধু পাসই নয়, প্রথম হওয়া তার লক্ষ্য।