টিডিএন বাংলা ডেস্ক: কেন্দ্র সরকারের বিরুদ্ধে রাজ্যের ১৭ হাজার কোটি টাকা আটকে রাখার অভিযোগ করলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। বৃহস্পতিবার তিনি কেন্দ্রের বিরুদ্ধে এই অভিযোগ করেন। এদিন রাজ্য সচিবালয়ে সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মমতা বলেন, ‘কেন্দ্রের থেকে এখনও ১৭,০০০ কোটি টাকা বকেয়া বাকি রয়েছে। তারা যদি আমাদের বকেয়া টাকা দিয়ে দেয়, তাহলে আমরা সেই অর্থ ত্রাণের কাজে ব্যবহার করতে পারি।’‌ মুখ্যমন্ত্রী জানিয়েছেন যে বকেয়া টাকা মিটিয়ে দেওয়ার জন্য তিনি কেন্দ্রকে চিঠি দেবেন।

তৃণমূল কংগ্রেসের সুপ্রিমো জানান, কেন্দ্র এখন তার দলকে বুলবুল বিধ্বস্ত উত্তর–দক্ষিণ ২৪ পরগণা ও পূর্ব মেদিনীপুরে পাঠাবে। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেন, ‘‌আমি কেন্দ্রের কাছে এই পরিস্থিতিতে সাহায্যর জন্য অনুরোধ করেছিলাম। কেন্দ্রের প্রতিনিধিদের এলাকা পরিদর্শনের আগেই আমরা আমাদের রিপোর্ট কেন্দ্রের কাছে পাঠিয়ে দিয়েছি। সেই সময় প্রধানমন্ত্রী বলেছিলেন যে তিনি সাহায্য করবে, দেখা যাক কি হয়।’‌ মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় দাবি করেন যে কেন্দ্রীয় রাজস্ব দিতে কেন্দ্র ব্যর্থ হওয়ায় রাজ্য সরকারের ৬৪০ কোটি টাকার লোকসান হয়েছে।

বুধবারই দক্ষিণ ২৪ পরগণার বুলবুল বিধ্বস্ত এলাকা পরিদর্শনের জন্য যান কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বাবুল সুপ্রিয়। তাঁকে দেখে বিক্ষোভ দেখানো হয়। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় অনুরোধ করেন যে ত্রাণ সংক্রান্ত কাজের থেকে রাজনীতিকে দূরে রাখুন। মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘‌আমি যেখানে আক্রান্ত মানুষের পাশে দাঁড়িয়ে রয়েছি, সেখানে অনেকে রয়েছেন যাঁরা এটা নিয়ে নোংরা রাজনীতি ও ভাঙচুর করছেন। আমি তাদের উদ্দেশ্যে বলব রাজনীতিকে এই বিষয় থেকে দূরে রাখুন, এটা সময় নয় রাজনীতি করার।’‌ এই পরিস্থিতিতে কেন্দ্র–রাজ্য একজোট হয়ে কাজ করার কথা ছিল, কিন্তু সেটা এখন হচ্ছে না বলে চিন্তায় রয়েছে মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়।

উল্লেখ্য, গত শনিবার রাজ্যের সাগরদ্বীপে আছড়ে পড়ে ঘূর্ণিঝড় বুলবুল। বুলবুলের দাপটে রাজ্যের ৬ লক্ষ মানুষ প্রভাবিত হয়েছে এবং পাঁচ লক্ষ বাড়ি ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। রাজ্যের ক্ষতি করার পর তা বাংলাদেশে চলে যায়। এই বুলবুলের জেরে সমুদ্রে ট্রলার ডুবে মৃত্যু হয়েছে মৎস্যজীবী সহ ১৪ জনের।