কৌশিক সালুই, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: দলীয় কর্মসূচিতে যোগ দেওয়ার অপরাধে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীদের বিরুদ্ধে বিজেপি কর্মীদের মারধরের অভিযোগ উঠল। ঘটনায় বেশ কয়েকজন বিজেপি কর্মী গুরুতর জখম হয়েছেন। এদের মধ্যে একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক। ঘটনাটি ঘটেছে সোমবার গভীররাতে বীরভূমের মহম্মদ বাজার থানার ভূতুরা গ্রাম পঞ্চায়েতের বেহিরা- ভেজেনা গ্রামে। ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে সাতজনকে আটক করেছে পুলিশ। এলাকায় উত্তেজনা থাকায় পুলিশের টহল।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে গুরুতর জখম বিজেপির কর্মীরা হলেন মাজু খান, ঈদ মহম্মদ খান, সাকীর খান এবং আমজাদ খান। এদের মধ্যে মাজু খানের অবস্থা আশঙ্কাজনক। তিনি বর্ধমান মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন। বাকি দু’জন এর চিকিৎসা সিউড়ি সুপার স্পেশালিটি হাসপাতালে চলছে।

বিজেপি নেতৃত্বের দাবি ওই গ্রামে বিজেপির পতাকা লাগানো কে কেন্দ্র করে দলের স্থানীয় তৃণমূল নেতৃত্বের হুমকিতে পড়েছিলেন বিজেপির কর্মীরা। গত সোমবার বিজেপির বীরভূম জেলার দুই প্রার্থীর মনোনয়ন দাখিল ছিল সিউড়ি তে। জেলার অন্যান্য অংশের মতো বেহিরা ভেজেনা গ্রাম থেকে বিজেপি কর্মীরা সিউড়িতে এসেছিলেন মনোনয়ন পর্ব কর্মসূচিতে।

অভিযোগ রাত্রি আটটা নাগাদ বিজেপি কর্মীরা স্থানীয় প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে একটি মাচাতে বসে ছিলেন। অতর্কিতে সেই সময় তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতী রা তাদের উপর হামলা করে বোমা ও ধারালো অস্ত্র নিয়ে। মাজু খান এর পেটে ভোজালির কোপ দেওয়া হয়েছে। বাকিদের মাথা ফাটিয়ে দেওয়া হয়েছে এবং হাত-পা ভেঙে দেওয়া হয়েছে।

তারপর তাদের সকলকে চিকিৎসার জন্য সিউড়ি হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। গতরাতে সাত জন কে ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে আটক করেছে পুলিশ। এদিন সকালের বীরভূম লোকসভা কেন্দ্রের প্রার্থী দুধ কুমার মন্ডল সিউড়ি হাসপাতালে দলীয় কর্মীদের সঙ্গে দেখা করে আসেন। বিজেপি নেতৃত্বের দাবি স্থানীয় তৃণমূল নেতা সিরাজ খান ও খাদিম খানের নেতৃত্বে এই হামলা করা হয়েছে।