সাদ্দাম হোসেন, টিডিএন বাংলা, বৈষ্ণবনগর: মনের জোর আর প্রবল ইচ্ছার কাছে হার মানলো আর্থিক প্রতিবন্ধকতা। বাবা মতিউর রহমান রাজমিস্ত্রী, মা রেখা বিবি গৃহবধূ। বিড়ি বেঁধে বহু কষ্টে পড়াশুনা করে রুবিনুর। উচ্চ মাধ্যমিকে তার প্রাপ্ত নম্বর ৪১১, বিষয় ভিত্তিক নম্বর বাংলা- ৬৮, ইংরেজী-৬৪, শিক্ষা বিজ্ঞান-৮৩, ভূগোল-৮৩,দর্শন-৯১, রাষ্ট্র বিজ্ঞান-৮৬, গড় ৮২.২০ শতাংশ।

ভগবানপুর কেবিএস হাই স্কুল থেকে এবছর উচ্চমাধ্যমিক দিয়েছিল সে। রুবিনুরের বাড়ি মালদা জেলার বৈষ্ণবনগর থানার জাগিরটোলা প্রত্যন্ত গ্রামে। পড়াশুনার পাশাপাশি, ধর্মকর্মে মন তার,  কিভাবে খরচ জোগাড় করে কলেজে পড়বে সে চিন্তা তার। তিন বোন, এক ভাই সংসার তাদের, রুবিনুরের সাফল্যে খুশি পরিবারের সকলে।

রুবিনুরের মা রেখা বিবি জানান, বাড়ির কাজকর্ম সেরে বিড়ি বেঁধে পড়াশুনা করতো রুবিনুর। তার এমন ফলাফলে খুশি আমি। আমি চাই আমাদের অশিক্ষিত গ্রামকে শিক্ষিত করে তুলুক রুবিনুর।

বাবা মতিউর রহমান জানান, বহু কষ্ট করে চার ছেলে মেয়েকে পড়াশুনা করাচ্ছি। রুবিনুর ছোট থেকে মেধাবী তার ফলাফলে আমি ভীষণভাবে খুশি। তার সাফল্য গর্বিত আমরা।

টিডিএন বাংলাকে রুবিনুর খাতুন জানায়, প্রত্যাশিত অনুযায়ী ফলাফল হয়নি। তবে উচ্চশিক্ষিত হয়ে গ্রামের দুঃস্থ ছেলেমেয়েদের পড়াশুনা শিখাতে চান। বড় হয়ে শিক্ষিকা হওয়ার স্বপ্ন রয়েছে তার। দুঃসময়ে যারা ওর পড়াশুনায় সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন তাদের প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করে রুবিনুর।