টিডিএন বাংলা ডেস্ক : আধার মামলায় কলকাতা হাইকোর্টের ভর্ৎসনার মুখে পড়ল কেন্দ্র। বেহালার এক প্রতিবন্ধী যুবক এখনও পর্যন্ত আধার কার্ড না পেয়ে আদালতের দ্বারস্থ হন। এনিয়েই আদালত কেন্দ্রীয় আইনজীবিকে প্রশ্ন করে, কেন আধিকারিকরা তাঁর বাড়ি গিয়ে আধার কার্ড বানিয়ে দিয়ে আসবেন না। এদিন বিচারপতি আরও বলেন, “কেন্দ্র সকলকে ডিসেম্বরের মধ্যে ব্যাঙ্ক অ্যাকাউন্ট সহ একাধিক ক্ষেত্রে আধার লিঙ্ক করাতে বলেছে। অথচ কেন্দ্র নিজেই তা মানছে না। আদালতকে কেন এবিষয়ে হস্তক্ষেপ করতে হবে। আমি যদি বলি আগামীকালই আধারের জন্য নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে আসুন। তখন আপনারা কি তা করবেন?”


সেরিব্রাল পলসিতে আক্রান্ত বেহালার যুবক সনৎকুমার মৈত্র। প্রথমে তিনি আধার কার্ড করাতে ওই এলাকার ক্যাম্পে গেলে তাঁর চোখ ও আঙুলের ছাপ নেওয়ায় সমস্যা হয়। পরে  চলতি বছরের ৯ অগাস্ট আবার যান তিনি। সেবারও একই সমস্যা হয়। তখন কলকাতা পৌরনিগম সহ বিভিন্ন দফতরে আবেদন জানানো হয় বাড়িতে এসে সনৎ-এর আধারের নমুনা সংগ্রহ করার জন্য। কিন্তু, কেন্দ্রীয় সরকারের দায়িত্বপ্রাপ্ত এজেন্সি তার বাড়িতে আসেনি বলে অভিযোগ। শেষ পর্যন্ত আর কোনও উপায় না দেখে কলকাতা হাইকোর্টের দ্বারস্থ হন সনতের মা।


এই মামলাতেই কার্যত এদিন কেন্দ্রকে ভর্ৎসনা করল আদালত। বিচারপতি দেবাংশু বসাক প্রশ্ন করেছেন, “আধার কার্ডের জন্য মানুষকে কেন হাইকোর্টের দ্বারস্থ হতে হবে? “কেন আপনারা আইন অনুযায়ী ওই যুবকের বাড়িতে গিয়ে নমুনা সংগ্রহ করছেন না?”
এদিন কেন্দ্রের বিচারপতি আদালতের কাছে তিনমাসের সময় চেয়ে নেয়। এরপরই বিচারপতি বলেন, “আপনারা ডিসেম্বর পর্যন্ত সময় দিয়েছেন আধার লিঙ্ক করানোর। অথচ নিজেরাই আইন মানছেন না ? আমি যদি আগামীকাল বলি তাহলে গিয়ে কি করাবেন?”


বিচারপতি আগামী ১৩ নভেম্বর মধ্যে ওই যুবকের বাড়ি থেকে আধার কার্ডের জন্য নমুনা সংগ্রহ করে নিয়ে আসার নির্দেশ দেয় কেন্দ্রকে।