টিডিএন বাংলা ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এনআরসি বিরোধী হলে ডিটেনশন ক্যাম্প কেন তৈরি করছেন, এভাবেই কটাক্ষ করলেন সিপিএমের রাজ্য সম্পাদক সূর্যকান্ত মিশ্র। এর মুখ্যমন্ত্রী একাধিকবার বলেছেন রাজ্যে কোন মতেই এনআরসি হতে দেবেন না। এমনকি তার শরীরে এক বিন্দু রক্ত থাকা পর্যন্ত তিনি এনআরসি আটকাবেন। নতুন করে আবার মুর্শিদাবাদের সাগরদিঘীর জনসভা থেকেও রাজ্যে এনআরসি হবেনা বলেও হুঙ্কার দেন।

বুধবার  সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘এনআরসি নিয়ে তৃণমূল আর বিজেপি মানুষের মধ্যে বিভাজনের রাজনীতি করছে, কিন্তু আমরা কোনওভাবেই পশ্চিমবঙ্গে এনআরসি হতে দেবো না।’ কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ সংসদে যে এনআরসি হুমকি দিয়েছেন, তার প্রতিক্রিয়ায় সূর্য মিশ্র বলেছেন, ‘আমরা স্পষ্টভাবে বলে দিয়েছি, এরাজ্যে কোনোভাবেই এনআরসি হতে দেবো না। আমরা জানতে পেরেছি যে, পশ্চিমবঙ্গে দুটি জায়গায় ডিটেনশন ক্যাম্প তৈরি করা হচ্ছে। যদিও বলা হচ্ছে এগুলি ফরেনার্স ট্রাইবুনালে বিচারাধীন বিদেশি বন্দীদের রাখার জন্য ব্যবহার করা হবে, কিন্তু আমরা আশঙ্কা করছি, এগুলি চালু হলে ভবিষ্যতে এনআরসি’তে নাম বাদ যাওয়া নাগরিকদের রাখার জন্যও ব্যবহার করা হবে।’

এরপরই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি আক্রমণ করে সূর্যকান্ত মিশ্র বলেন, ‘মুখ্যমন্ত্রী যদি সত্যিই এনআরসি’র বিরোধী হন, তাহলে রাজ্যে জমি জায়গা দিয়ে এই ক্যাম্প বানাতে দিচ্ছেন কেন? মুখ্যমন্ত্রী যতই এনআরসি বিরোধী কথা বলুন না কেন, তিনি মুখে এক বলেন আর কাজে আরেক করেন। কিন্তু আমরা আবারও স্পষ্টভাবে বলে দিচ্ছি, পশ্চিমবঙ্গে কোনও অবস্থাতেই এনআরসি করতে দেওয়া হবে না।’

সংসদে চলতি অধিবেশনে রাজ্যসভায় নাগরিকত্ব সংশোধনী বিল পেশ হওয়ার কথা। তার আগে বুধবার এনআরসি প্রসঙ্গে আলোচনা করতে রাজ্যসভায় আসেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ। এই প্রসঙ্গে আলোচনার সময় তিনি বলেন, ‘ভারতের সব নাগরিকের জন্যই এনআরসি তালিকা হবে। সবার নামই যুক্ত হবে এনআরসি তালিকায়। কোনও ধর্ম, অঞ্চলের ভিত্তিতে এনআরসি করা হচ্ছে না। নাগরিকত্ব বিলের থেকে ভিন্ন এনআরসি।’

এদিকে অসমে এনআরসি-র জেরে ১৯ লাখ মানুষের নাম বাদ যাওয়া নিয়ে কেন্দ্রীয় সরকারকে একহাত নেন তৃণমূল সুপ্রিমো। বলেন, ‘অস্থায়ী জেলে রাখা হয়েছে ওদের। বাংলায় এসব হবে না।’