নিজস্ব প্রতিনিধি, টিডিএন বাংলা, কলকাতা: জেলা পরিষদ, পঞ্চায়েত সমিতি এবং গ্রাম পঞ্চায়েত এই তিনটি স্তরে জনপ্রতিনিধিদের ভাতা বৃদ্ধির সিদ্ধান্ত নিল রাজ্য সরকার। সোমবার নবান্নের সভাঘরে জেলা পরিষদের সদস্যদের সঙ্গে বৈঠকের শেষে এই কথা জানান মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সংবাদমাধ্যমের সামনে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, এরা আগে কিছুই পেত না। আমাদের সরকার আসার পর আমরা ভাতা বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নিই। সর্বনিম্ন ১৫০০ টাকা ভাতা দেওয়া হতো।

কোন স্তরের জনপ্রতিনিধির ভাতা কত বাড়লো

জেলা পরিষদ

সভাপতি বর্তমান ভাতা ৬০০০ টাকা প্রস্তাবিত ভাতা হলো ৯০০০ টাকা।
সহকারি সভাধিপতি বর্তমান ভাতা পাঁচ হাজার টাকা থেকে বেড়ে হল ৮ হাজার টাকা। কর্মাধ্যক্ষ চার হাজার টাকা থেকে ভাতা বেড়ে হল সাত হাজার টাকা।
অধ্যক্ষ এবং উপাধ্যক্ষ এর বেতন যথাক্রমে ৪ হাজার এবং দুই হাজার টাকা থেকে বেড়ে হল ৭ হাজার টাকা
সাধারণ সদস্যের বেতন ১৫০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৫০০০ টাকা।

পঞ্চায়েত সমিতি

সভাপতির ভাতা ৩৫০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৬০০০ টাকা
সহ-সভাপতির ভাতা ৩ হাজার টাকা থেকে বেড়ে হলো ৫৫০০ টাকা
কর্মাধ্যক্ষের ভাতা ২৫০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৫০০০ টাকা।
সাধারন সদস্যের বেতন ১৫০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৩৫০০ টাকা।

গ্রাম পঞ্চায়েত

প্রধানের ভাতা ৩০০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৫০০০ টাকা।
উপ প্রধানের ভাতা ২০০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৪০০০ টাকা
উপ সমিতির সঞ্চালকের ভাতা ১৮০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৩৮০০ টাকা সাধারণ সদস্যের ভাতা ১৫০০ টাকা থেকে বেড়ে হলো ৩০০০ টাকা।

কয়েকদিন আগে বিধানসভা চলাকালীন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের বিধায়কদের ভাতা বৃদ্ধির কথা ঘোষণা করেছিলেন বিধানসভায়। বিধায়ক দের ভাতা এক হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে দুই বাজার টাকা করা হয়। এবং মন্ত্রীদের ভাতা দুই হাজার টাকা থেকে বাড়িয়ে তিন হাজার টাকা করা কথা ঘোষণা করেছিলেন মুখ্যমন্ত্রী। মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানান আব্দুল মান্নান এবং সুজন চক্রবর্তী।

এবার ত্রিস্তরীয় পঞ্চায়েত এর ক্ষেত্রে সব স্তরেই ভাতা বৃদ্ধির এই সিদ্ধান্ত শুধুমাত্র তৃণমূল কংগ্রেসের জন প্রতিনিধিদের নয়, খুশি করলো সব দলের নির্বাচিত প্রতিনিধিদের।