টিডিএন বাংলা ডেস্ক: এবার নির্বাচন কমিশনের কোপে বাঁকুড়ার জেলাশাসক। এর আগে বিভিন্ন সময়ে কমিশনের নির্দেশে সরানো হয়েছে পুলিশ আধিকারিকদের। এই প্রথম কোনো জেলাশাসকের বিরুদ্ধে কড়া পদক্ষেপ নিল কমিশন। পক্ষপাতদুষ্ট আচরণের অভিযোগে অপসারণ করা হল বাঁকুড়ার জেলাশাসক উমাশঙ্কর এসকে। তাঁর জায়গায় নতুন জেলাশাসক হিসেবে নিয়োগ করা হল মুক্তা আর্যকে। রবিবার নির্বাচন কমিশনের তরফে এই নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। রবিবার দেশজুড়ে ছিল লোকসভা নির্বাচনের ষষ্ঠদফার ভোটগ্রহণ। দেশজুড়ে ৫৯টি আসনে ভোট হয়েছে। তার মধ্যে ছিল বাঁকুড়াও। রবিবার বাঁকুড়ার নির্বাচন প্রক্রিয়া শেষ হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই তাঁকে সরিয়ে দেওয়া হল। উমাশঙ্কর এসের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে অভিযোগ জানিয়েছিল বিজেপি। সম্প্রতি বাঁকুড়ায় নির্বাচনী প্রচারে এসেছিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তাঁর সভার অনুমতি দেওয়াকে কেন্দ্র করে ওই জেলাশাসক পক্ষপাতদুষ্ট আচরণ করেন বলে অভিযোগ তুলেছিল বিজেপি।

বিজেপির তরফে প্রধানমন্ত্রীর সভার জন্য প্রথমে বাঁকুড়ার করগাহিড়ের মাঠ ঠিক করা হয়। প্রথমে ওই মাঠে সভা করার জন্য জেলা প্রশাসনের কাছে অনুমতি চায় বিজেপি। কিন্তু সেই সভার অনুমতি দেওয়া হয়নি। পরে প্রশাসনের বাঁকুড়া শহর থেকে সাত কিলোমিটার দূরে কমলাডাঙা গ্রামের কাছে বিশ্ববিদ্যালয় লাগোয়া মাঠে প্রধানমন্ত্রীর সভার অনুমতি দেওয়া হয়। এ নিয়ে নির্বাচন কমিশনে বাঁকুড়ার জেলাশাসক উমাশঙ্কর এসের বিরুদ্ধে বিজেপি অভিযোগ জানায়। সেই অভিযোগ খতিয়ে দেখেই রবিবার ব্যবস্থা নিল কমিশন।