মাহ্ফুজা তারান্নুম, টিডিএন বাংলা, নন্দকুমার : মুর্শিদাবাদের পর এবার পূর্ব মেদিনীপুরেও দাবি উঠলো বিশ্ববিদ্যালয়ের। দাবিতে সরব হলো ওয়েলফেয়ার পার্টি অফ ইন্ডিয়ার পূর্ব মেদিনীপুর জেলা শাখা। পার্টির জেলা সভাপতি মির্জা নুরুল হাসান নন্দকুমারে মঙ্গলবার এক জনসভায় বলেন, ‘এ জেলাতে  অনেক শিক্ষিত কলেজ পাশ ছেলে-মেয়ে রয়েছে কিন্তু জেলায় কোনো বিশ্ববিদ্যালয় না থাকায় তারা উচ্চতর শিক্ষা হতে বঞ্চিত হচ্ছে।’ জেলাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের দাবিতে তারাই প্রথম সোচ্চার হয়েছেন বলেও তিনি জানান। জেলায় অনেক রাজনৈতিক শক্তির উত্থান পতন হয়েছে, কিন্তু আজ পর্যন্ত কোনো শক্তিই বিশ্ব বিদ্যালয়ের দাবীতে সরব হয়নি  বলে অভিযোগ শিক্ষিত মহলের।

পার্টির সদস্য প্রফুল্ল কুমার সাহু বলেন, “ওয়েলফেয়ার পার্টি যদি ক্ষমতায় আসে তবে এ জেলায় বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার বিষয়ে তৎপর হবে।” বিশিষ্ট সমাজসেবী ও শিক্ষাবিদ সরিফুল হাসান আক্ষেপের সুরে বলেন, “এই জেলায় রাজ্যের সব থেকে বেশী শিক্ষিত মানুষের বাস। অথচ  উচ্চতর শিক্ষা ও গবেষণার যথাযথ ব্যবস্থা না থাকায় সুপ্ত প্রতিভার বিকাশ ঘটছে না, তাই  অবিলম্বে এই জেলায় বিশ্ব মানের একটি বিশ্ব বিদ্যালয় গড়ে তুলতে সরকারের তৎপর হওয়া উচিৎ।”

শিক্ষিকা তমালিকা প্রধান বিশ্ববিদ্যালয় প্রসঙ্গে বলেন, “ওয়েলফেয়ার পার্টি অফ ইন্ডিয়া’র উপস্থাপিত দাবীটি এ জেলার আপামর জনতার মনের দাবী। অবিলম্বে এ দাবী পূরণ হওয়া উচিত।”  পরিসংখ্যান অনুযায়ী, পূর্ব মেদিনীপুর জেলাতে সরকারি কলেজ রয়েছে ১৫ টি, হাই স্কুল রয়েছে ১৫৬ টি, জুনিয়র হাই স্কুল ১৮৯টি, প্রাইমারী স্কুল আছে ৩২১৭টি, শিশু শিক্ষা কেন্দ্র ১৫১৬ টি। সেই তুলনায় হাই মাদ্রাসা রয়েছে মাত্র ৮ টি, জুনিয়র হাই মাদ্রাসার সংখ্যা আরো কম মাত্র ৫টি, আরএফসি মাদ্রাসা আছে ২টি। কিন্তু কোনো বিশ্ব বিদ্যালয় নেই।

আর্থিক অসচ্ছলতার কারণে অনেক মেধাবীর ভিন জেলায় গিয়ে উচ্চ শিক্ষা গ্রহণ করা সম্ভব হয় না। তাই পূর্ব মেদিনীপুর জেলার ছাত্র -ছাত্রীদের মুখে এখন একটাই স্লোগান, ‘বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে দাও। শিক্ষার দুয়ার খুলে দাও।’