নিজস্ব প্রতিনিধি, টিডিএন বাংলা, বীরভূম : বীরভূমের ময়ূরেশ্বরের ১ নম্বর ব্লকে ১০০ দিনের কাজ নিয়ে তৃণমূল-বিজেপি দুই রাজনৈতিক দলের মধ্যে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়। ময়ূরেশ্বরের জিকড্ডা গ্রামে ঘটনায় আহত হয়েছেন বেশ কয়েকজন। মূলত ১০০ দিনের কাজ নিয়ে ময়ূরেশ্বরের এই গ্রামে উত্তেজনা ছড়ায়, বাঁধে দুই রাজনৈতিক দলের সমর্থকদের মধ্যে সংঘর্ষ। এলাকায় রয়েছে পুলিশ বাহিনী।

পঞ্চায়েত নির্বাচনের পর জিকড্ডা গ্রাম চলে এসেছে তৃণমূলের হাতে। যদিও যে রাওতারা সংসদ রয়েছে সেখানে বিজেপি জয় লাভ করে। আজ সকালে যখন তৃণমূল সমর্থকরা ওই এলাকায় ১০০ দিনের কাজ করতে যায় তখন বিজেপি কর্মীরা তাদেরকে বাধা দেয় বলে অভিযোগ।এবং বলা হয় এই সংসদে বিজেপি সমর্থকরাই কেবল কাজ করবে।

অন্যদিকে বিজেপি দাবী করে যেহেতু ওই এলাকায় বিজেপির মেম্বার তাই তাদের কাজ করতে দেওয়া হচ্ছে না। আজকে তারা কাজ চাইতে গেলে তৃনমুল কর্মীসমর্থাকরা চড়াও হয় এবং মারধর করে। এই নিয়ে দুই রাজনৈতিক দলের সমর্থকদের মধ্যে বাদানুবাদ শুরু হয় এবং সেই বাদানুবাদ থেকে শুরু হয় সংঘর্ষ। দুই দলের সমর্থকরা বাঁশ, লাঠি ইত্যাদি নিয়ে হাতাহাতিতে জড়িয়ে পড়ে এবং এই হাতাহাতির ফলে দুই পক্ষেরই বেশ কিছু সমর্থক আহত হয়েছেন।

ঘটনায় তৃণমূলের প্রায় ১০জন আবার বিজেপিরও দাবী তাদেরও ১০জন আহত। ঘটনার খবর পেয়ে ময়ূরেশ্বর থানার পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়, গ্রামে চলছে পুলিশি টহলদারি।
এই বিষয়ে তৃণমূলের ঝিকড্ডা পঞ্চায়েতের প্রধান রথীন সরকার বলেন, “বিজেপি আমাদের উন্নয়নে বাঁধা দিচ্ছে। আজকে আমাদের কর্মীরা কাজ করতে গেলে তাদেরকে বাঁধা দেওয়া হয় এবং মারধরও করা হয়। ঘটনায় আমাদের প্রায় ১০জন কর্মী আহত হয়েছে।”

অন্যদিকে ঝিকড্ডা পঞ্চায়েতের বিজেপির মেম্বার ভবতারন বাগদী বলেন, “আমরা বিজেপি তাই তৃনমুল আমাদের কাজ করতে দিচ্ছে না।আজকে আমরা কাজ করতে গেলে আমাদেরকে তৃণমূলের কর্মীরা বাঁধা দেয় এবং মারধর করে।”

Not available