নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, কলকাতা : নদীয়ার করিমপুরের থানার পাড়া থানার পন্ডিতপুর সামসেরিয়া হাই মাদ্রাসায় ওয়েলফেয়ার পার্টি অফ ইন্ডিয়াকে নমিনেশন জমা দিতে দিলোনা তৃণমূলের দুষ্কৃতীরা। বুধবার এই অভিযোগ করেন দলটির নদীয়া জেলা সভাপতি মুহা: সাহাবুদ্দিন মন্ডল। তিনি বলেন, “পন্ডিতপুর সামসেরিয়া হাই মাদ্রাসাতে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা নমিনেশন জমা দিতে দেয়নি।আমরা বারবার থানারপাড়া থানার কাছে অনুরোধ করেছি পুলিশি নিরাপত্তা দেবার জন্য।কিন্তু ওসি কোনও সাহায্য করেনি।

 

 

এসডিও, এসডিপিকে জানানো হয়েছে। কিন্তু পুলিশ কোনও রকম সাহায্য করেনি। পুলিশ তাহলে কার? মানুষের নিরাপত্তার জন্য আবেদন করেও যদি পুলিশ সাহায্য না করে, গণতান্ত্রিক ভাবে লড়াই করার কোনও পরিবেশ যদি না পায় তবে আমরা কোন রাজ্যে বাস করছি?” ওয়েলফেয়ার পার্টির ব্লক সভাপতি আব্দুর রউফ মুন্সি বলেন, “আমি নিজে ছিলাম নমিনেশন জমা দিতে যাবার সময়। আমার বাড়ি এই গ্রামেই। আজ যে সব দুষ্কৃতীরা নমিনেশন করতে দিলোনা তারা কিছুদিন আগে সিপিআইএম ও কংগ্রেসের হয়ে গুন্ডামি করেছে। স্কুলের গেটের কাছে আমাদের প্রার্থীদের আটকাতে বহু দুষ্কৃতীরা জমা হয়। আগে থেকে হুমকি ছিল। কিন্তু আমরা নমিনেশন জমা দিতে যায় সাহস করে। কিন্তু পুলিশ কোনও রকম সাহায্য করেনি, দুষ্কৃতীদের সাথে আমরা লড়াই করতে যায়নি। আমি অবাক হচ্ছি, পুলিশ সত্যি পুরো তৃণমূলের গোলাম হয়ে গেল! আমার জীবনে এই রকম ঘটনা প্রথম দেখলাম। মাদ্রাসায় দুষ্কৃতীরা রাজত্ব করবে?”
দলটির এক প্রার্থী আলমগীর মন্ডল বলেন, “আমি কিছুদিন আগে নমিনেশনের ফর্ম তুলতে গিয়েছিলাম। মাদ্রাসার গেট থেকে বেরিয়ে আসতেই একজন তৃণমূলের লোক আমার হাত থেকে নমিনেশন পত্র কেড়ে নিয়ে ছিড়ে ফেলল।আজ আবার গিয়েছিলাম। কিন্তু মাদ্রাসায় ঢুকতেই দিলোনা। গণতান্ত্রিক অধিকারটুকু আমাকে দেওয়া হলোনা।”
উল্লেখ্য, এই মাদ্রাসায় বিগত পরিচালন সমিতি ছিল সিপিআইএম ও কংগ্রেস জোটের (পরে সকলে তৃণমূলে যোগ দেন।)
এবার ওয়েলফেয়ার পার্টি ছাড়া কোনও দল নমিনেশন জমা দিতে যায়নি। দলটির অভিযোগ, এলাকার সব দুষ্কৃতীরা নিজেদের স্বার্থে তৃণমূল করছে। কিন্তু সাধারণ মানুষ এঁদের চায়না। আর হারার ভয় থেকে নমিনেশন জমা দিতে দিলোনা ওয়েলফেয়ার পার্টিকে।
দলটির রাজ্য সভাপতি মনসা সেন জানান, “একটা অগণতান্ত্রিক ভাবধারা ছড়িয়ে দিচ্ছে চারিদিকে যা গণতন্ত্রের জন্য ভয়ঙ্কর বিপদ। ভোট রাজনীতিতে যেভাবে বুথ দখল, বিপক্ষকে চোখ রাঙানো এবং হিংসার পরিবেশ তৈরি করা হচ্ছে তা বাংলা ও দেশের পক্ষে খুব ক্ষতিকর। নদীয়ার পন্ডিতপুর সামসেরিয়া হাই মাদ্রাসাতে যেভাবে তৃণমূল আশ্রিত দুষ্কৃতীরা ওয়েলফেয়ার পার্টির প্রার্থীদের গণতান্ত্রিক অধিকার হরণ করেছে তা লজ্জার। এই দল মাদ্রাসার মর্যদাকে নষ্ট করেছে। এই সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে আমরা গণতান্ত্রিক ভাবে রাজনৈতিক লড়াই করবো।সেই সাথে আমরা আইনের পথে যাচ্ছি।”