নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, মুর্শিদাবাদ: সম্প্রতি রাজ্যজুড়ে বিভিন্ন জেলা সফর শুরু করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সফরে কখনো চায়ের দোকান আবার কখনো বস্তি কিংবা সাধারণ মানুষ, শিশুদের সাথে মিশে নিজেই সুখ দুঃখের কথা শুনছেন তিনি। মমতার এই অভিনব উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে এবার মুর্শিদাবাদের বিড়ি শ্রমিকদের বাড়ি ডাকছেন সাধারণ মানুষ। নোটবন্দি ও জিএসটির কবলে পড়ে ধুঁকে ধুঁকে মরতে থাকা বিড়ি শ্রমিকদের কাছে কবে আসবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় তাও জানতে চাইছেন তারা।

মুর্শিদাবাদের ফারাক্কা, সামসেরগঞ্জ এলাকার বিড়ি শ্রমিক সাইরা বিবি, লালবাণু বিবি, নাজেরা বিবি, মেরি খাতুনরা জানান, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের এই উদ্যোগ নিঃসন্দেহে ভালো। কিন্তু নোট বন্দির পর আমরা চরম সমস্যায় পড়লেও আমাদের কেউ খোঁজ নেয়নি। সপ্তাহে মাত্র দুদিন কিংবা তিনদিন বিড়ির কাজ চলায় আমাদের সংসার চালানো কষ্টকর হয়ে উঠেছে। আমরাও চাইছি মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এসে নিজের চোখে আমাদের
বেহাল দশা পর্যবেক্ষণ করে যান। জঙ্গিপুরের বিড়ি শ্রমিক শাহানাজ পারভীন, শাহিনা সুলতানা, হাজেরা বেওয়া বলেন, আমরা চাই আমাদের বাড়ি আসুক মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। শুধু জঙ্গিপুর বা সামসেরগঞ্জই নয়, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে তাদের জীবনের দৈনন্দিন সমস্যা নিজ চোখে দেখে যেতে মুর্শিদাবাদে ডাকছেন বিড়ি শ্রমিকরা। কবে আসবেন মমতা? তা নিয়েও জানতে চাইছেন সাধারণ মানুষ।

উল্লেখ্য, বিড়ি শিল্পের জেলা নামে পরিচিত মুর্শিদাবাদ। এই জেলায় লক্ষ লক্ষ বিড়ি শ্রমিক বিড়ি বেঁধেই সংসার পরিচালনা করলেও ২০১৬ সালে কেন্দ্র সরকারের নোট বাতিলের পর থেকে ঠিকমতো কাজ পান না তারা। ফলে চরম সমস্যায় ভুগছেন লক্ষ লক্ষ বিড়ি শ্রমিক। ন্যায্য মজুরী থেকেও বঞ্চিত বিড়ি শ্রমিকরা। তাদের জন্য নেই কোনো ভালো স্বাস্থ্য পরিষেবা। স্বভাবতই তাদের দৈনন্দিন জীবনের সমস্যা মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়কে সরাসরি জানাতে চাই বিড়ি শ্রমিকরা।