নিজস্ব সংবাদদাতা, টিডিএন বাংলা, বীরভূম: মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জের লেবুবাগানে একই পরিবারের তিনজনের খুনের ঘটনায় তদন্তে বীরভূমের রামপুরহাটে তল্লাশী চালালো মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশের একটি দল। শুক্রবার বিকেলে রামপুরহাট নয় নম্বর ওয়ার্ডের শৌভিক বণিক নামে এক ব্যক্তির বাড়িতে আসে লালবাগ মহকুমা পুলিশ অধিকারিক বরুণ বৈদ্যের নেতৃত্বে তদন্তকারী পুলিশের দল। যদিও শৌভিক বণিককে বাড়িতে পাওয়া যায়নি। এদিন প্রায় ঘন্টা দুয়েক তার পরিবারের লোকজনদের জিজ্ঞাসাবাদ করে তদন্তকারী আধিকারিকরা। পাশাপাশি খুনের ঘটনায় রামপুরহাটের পরেই সিউড়ি অরবিন্দ পল্লীর জাতীয় সড়ক লাগোয়া বাড়িতে তল্লাশি চালালো পুলিশ। আজ লালবাগের এসডিপিও, মুর্শিদাবাদ জেলা পুলিশ আধিকারিকরা এই তল্লাশী চালান। এসময় উপস্থিত ছিলেন সিউড়ি থানার আইসি সহ অন্যান্য পুলিশকর্মীরা। তালাবন্ধ বাড়ি থেকে পুলিশ এসে বাড়ির তালা খুলে বেশকিছু নথিপত্র সংগ্রহ করে নিয়ে যায়।

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, শৌভিক বণিক নামে ওই ব্যক্তি ঝাড়খণ্ডের কুন্ডহিতের একটি স্কুলে শিক্ষকতা করতেন। গতকাল বিকেলে তাকে শেষবারের মতো ওই বাড়িতে দেখা যায়। স্থানীয় বাসিন্দাদের দাবি, তার পায়ে একটি আঘাতের চিহ্ন ছিল এবং সেই কারণে তিনি ভালোমতো হাটতেও পারছিলেন না। তাদের আরো দাবি, সৌভিক প্রতিবার পুজোতেই রামপুরহাটে আসলেও এবার পুজোয় তাকে দেখা যায়নি। তিনি নেটওয়ার্ক ব্যবসার সঙ্গে জড়িত ছিল বলে খবর। যদিও সৌভিক প্রায় ছয় মাস থেকে বাড়ি আসেনি বলে দাবি করেন সৌভিকের দাদা সৌরভ বণিক।

উল্লেখ করা যেতে পারে, মৃত বন্ধুপ্রকাশ পালের স্ত্রী বিউটি মন্ডলের বাবার বাড়ি রামপুরহাট থানার শিউরা গ্রামে। এই গ্রামেই তল্লাশির ঘটনায় রীতিমতো চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়েছে। যদিও এই খুনের সঙ্গে সৌভিকের কি সম্পর্ক তা এখনই বলতে চাইনি তদন্তকারী অফিসাররা।

উল্লেখ্য, গত মঙ্গলবার নিজ বাড়ির ভিতরেই রহস্যজনক ভাবে খুন হন মুর্শিদাবাদের জিয়াগঞ্জের ১৬ নম্বর ওয়ার্ডের লেবুতলার বাসিন্দা শিক্ষক বন্ধুপ্রকাশ পাল(৩৫), স্ত্রী বিউটি মণ্ডল পাল(৩০) ও ছেলে বন্ধুঅঙ্গন পাল(৮)। ঘটনার নেপথ্যে কী কারন রয়েছে তার অনুসন্ধানে নেমেছে পুলিশ। যদিও পুলিশের ভুমিকা নিয়ে প্রশ্ন তুলে ইতিমধ্যেই সরগরম হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক মহল। বৃহস্পতিবার স্বয়ং রাজ্যপাল ঘটনায় প্রশাসনের ব্যর্থতার দিকে আঙ্গুল তুলেন। তারপরেই মন্তব্য-পাল্টা মন্তব্যে কার্যত উত্তাল হয়ে উঠেছে রাজনৈতিক মহল। যদিও পুলিশ ঘটনাটিকে পারিবারিক বলে দাবি করেছে।