টিডিএন বাংলা ডেস্ক : এ যেন হিন্দি সিনেমার কাহিনী। পরিবারে নিত্যদিনের অভাব-অনটন। বাবা সামান্য অটোওয়ালা, আর দাদা গ্যারেজে কাজ করেন। হত দরিদ্র পরিবার। তার মধ্যেই আইএএস হওয়ার জন্য এক যুবকের লড়াই।
হ্যা, কুর্ণিস না জানিয়ে পারবেন না আপনি সদ্য ২২ বছরে পা দেওয়া সেই যুবক আনসার আহমেদ সেখকে, যিনি দেশের সর্ব কনিষ্ঠ আইএএস। তিনি এখন নদিয়া জেলার কৃষ্ণনগর-১ ব্লকের বিডিও। সবে তিন-চার দিন হল তিনি এই ব্লকে বিডিও হিসাবে এসেছেন।
আনসারবাবু ইউপিএসসি আইএএস সিভিল সার্ভিস -পরীক্ষা-২০১৬ তে জাতীয় স্তরে ৩৬১ র‍্যাংক পেয়ে পাশ করেন। তিনি জন্ম গ্রহন করেন মহারাষ্ট্রের জালনা জেলার শেলগাও গ্রামে যা খরা প্রবণ এলাকা বলে পরিচিত। জালনা ডিষ্ট্রিক্ট স্কুল থেকে পাশ করে পুনের ফারগুশন কলেজে রাষ্ট্র বিজ্ঞান নিয়ে ভর্তি হন। ২০১৫ সালে ৭৩% নম্বর নিয়ে পাশ করেন।
তারপর তিনি ওবিসি ক্যাটাগোরিতে ইউপিএসসি আইএএস সিভিল সার্ভিস পরীক্ষা দেন এবং জাতীয় স্তরে ৩৬১ র‍্যাংক করে ২১ বছর বয়সে দেশের সর্ব কনিষ্ঠ আইএএস হন। এ বছর ১ লা জুনে তার বয়স ২২ বছর পূর্ণ হল।
আনসারবাবুর দুই বোনের বিয়ে হয়ে গিয়েছে অল্প বয়সে। বাবা অটোওয়ালা হলে তার জীবনে মা ও গ্যারেজওয়ালা দাদার ভূমিকাই বেশী বলে জানা গিয়েছে।
কৃষ্ণনগর বিডিও অফিস সূত্রে খবর, এটা আনসারবাবুর ট্রেনিং প্রিরিয়ড চলছে। তিনি ১ লা জুলাই থেকে ২৩ শে সেপ্টেম্বর পর্যন্ত ওই ব্লকে বিডিও-র দায়িত্বভার সামলাবেন।
মঙ্গলবার তাকে পঞ্চায়েতিরাজ এমপ্লয়িজ ফেডারেশন থেকে শুভেচ্ছাও জানানো হয়। (স্টিং নিউজ