টিডিএন বাংলা ডেস্ক: দুর্নীতি রােধে রাতারাতি বাতিল হয়েছিল পুরনাে ৫০০ এবং এক হাজারের নােট। ২০১৬ – র ৮ নভেম্বর প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মােদির দাবি ছিল দুর্নীতি, জালিয়াতি, জাল নােট চক্র রুখতেই এই পদক্ষেপ। নতুন ২ হাজার টাকা বাজারে আনার কথাও ঘােষণা হয়েছিল। তবে আখেরে জাল নােট বন্ধ হল কি ? বরং উল্টোটাই ।

ক্রাইম ইন ইন্ডিয়া – ২০১৭ শীর্ষক রিপোর্ট বলছে, নােট বাতিলের পর জাল নােট ছাপানাের প্রবণতা বেড়েছে বেশি। উদ্বেগজনকভাবে ৭৬ শতাংশ বেশি। দেশে যত অপরাধ হচ্ছে তার বার্ষিক রেকর্ড ‘ ক্রাইম ইন ইন্ডিয়া ‘। এই রিপাের্ট প্রকাশ করে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্র মন্ত্রক অন্তর্ভুক্ত ‘ ন্যাশনাল ক্রাইম রেকর্ডস ব্যুরাে। এবার বার্ষিক রিপাের্ট পেশে দেরি হওয়ায় সমালােচনার মুখে পড়েছে কেন্দ্র। দীর্ঘ টালবাহানার পর অবশেষে প্রকাশ হল ২০১৭ – রবার্ষিক রিপাের্ট।

রিপাের্ট অনুযায়ী , ২০১৭ – এ সারা দেশে বাজেয়াপ্ত হয়েছে ২৮ কোটি ১০ লক্ষ মূল্যের জাল নােট। তার আগের বছর অর্থাৎ ২০১৬ সালে বাজেয়াপ্ত হওয়া জাল নােটের মূল্য ছিল ১৫ কোটি ৯০ লক্ষ টাকা। এক বছরে জাল নােট বৃদ্ধি হয়েছে প্রায় সাড়ে ৭৬ শতাংশ। পরিসংখ্যান বলছে, বাজেয়াপ্ত হওয়া জাল নােটের অর্ধেকেরও বেশি প্রায় ১৪ কোটি ৯৮ লক্ষ টাকা দু ‘ হাজারি নােট, যা নােট বাতিলের পরই বাজারে এসেছে। সব মিলিয়ে ৩ লক্ষ ৫৫ হাজার ৯৯৪টি জাল নােট উদ্ধার হয়েছে ২০১৭ – এ। ২০১৬ – এ উদ্ধার হয়েছিল ২ লক্ষ ৮১ হাজার ৮৩৯টি জাল নােট ।

‘ ক্রাইম ইন ইন্ডিয়া – ২০১৭ ’ রিপাের্ট জানিয়েছে , ২০১৭ – এ বাজেয়াপ্ত হওয়া জাল নােটের ৭৪ হাজার ৮৯৮টি ২ হাজার টাকা , ৬৫ হাজার ৭৩১টি ১হাজার টাকার । এছাড়া ১ লক্ষ ২ হাজার ৮১৫টি পুরনাে ৫০০ টাকা এবং ৮ হাজার ৮৭৯টি নতুন ৫০০ টাকার জাল নােটও ধরা পড়েছে । আর বাজেয়াপ্ত হয়েছে ৯২ হাজার ৭৭৮টি জাল ১০০ টাকা । ২০১৬ – এ নােট বাতিলের ৫৩ দিনের মাথায় ৩১ ডিসেম্বরের মধ্যে উদ্ধার হয়েছে বাজারে টাটকা আসা ২ হাজারের ২২২৭টি জাল নােট।

রাজ্যের নিরিখে সবচেয়ে বেশি জাল নােট উদ্ধার হয়েছে বিজেপি শাসিত গুজরাটে । প্রায় ৯ কোটি বা জাল নােটের ৩২ শতাংশ । জাল ২ হাজার নােটের ৪০ শতাংশও পাওয়া গেছে গুজরাটেই । ২০১৬ – ১৭ গুজরাটে জাল নােট বৃদ্ধি হয়েছে ২৮০ শতাংশ !

‘ কেয়ার রেটিংস ’ – র প্রধান অর্থনীতিবিদ মদন সবনবিশের মতে , ২ হাজার সর্বোচ্চ মূল্যের মুদ্রা হওয়ায় এবং তখন বাজারে কম থাকায় জাল নােট চক্র সক্রিয় হয়ে ওঠে । তাঁর কথায় , “ ভুয়াে নােট রােখা এমনিই কঠিন । তার ওপর বাজারে নতুন নােট এলে তা আরও কঠিন হয়ে যায় । ‘ এর ব্যাখ্যা দিয়ে জানিয়েছেন , নতুন নােট ভাল করে চিনতে কিছু সময় লাগে । এর ফায়দা তােলে জাল নােট চক্র । বাজারে জাল নােট ছেড়ে দেয় ।

উল্লেখ্য , দুর্নীতি ও জালিয়াতি রুখতে বাজার থেকে উঠে যাচ্ছে ২ হাজার টাকার নােট । যে ক ‘ টা বাজারে অবশিষ্ট তা শেষের মুখে । এরই মধ্যে ২ হাজারি নােটের জালিয়াতির আশঙ্কাজনক খবর দিল ‘ ক্রাইম ইন ইন্ডিয়া’।